স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার স্বীকারোক্তি যুবলীগ নেতা সেলিম মন্ডলের

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : সাভার উপজেলা যুবলীগের বহি®কৃত সভাপতি ও ঢাকা জেলা পরিষদের সদস্য সেলিম ম-ল স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবাবন্দী দিয়েছে। গতকাল বুধবার মানিকগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট লিভানা খায়ের জেসি’র আদালতে সেলিম ম-ল এ স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দেয়। পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম এ তথ্য জানিয়েছেন। বুধবার বিকাল সোয়া চারটার দিকে মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম তার কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব তথ্য জানান।

পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের জানান, সেলিম ম-ল তার দ্বিতীয় স্ত্রী বকুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে ঘটনার দিন (২ আগস্ট) রাতে ঝগড়া শুরু করে। ঝগড়ার এক পর্যায়ে সে স্ত্রীকে মারধরের পর হত্যা করে। হত্যার আগে তার বাসায় থাকা রুমের সিসি ক্যামেরাগুলো বন্ধ করে রাখে। পরে তার ঘনিষ্ঠ কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে স্ত্রীর লাশটি বিছানার চাদর দিয়ে পেঁচিয়ে নিজের প্রিমিও গাড়িতে করে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার বায়রা ইউনিয়নের স্বরূপপুরে রাস্তার ধারে ফেলে তাতে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরদিন (৩ আগস্ট) ভোর রাতে স্থানীয় লোকজন পুড়ে যাওয়া বিকৃতি লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। শরীরের ৯০ ভাগ আগুনে পুড়ে গেলেও মুখ ম-ল দেখে তার স্বজনরা লাশটি সনাক্ত করে। পরে নিহতের ভাই উজ্জ্বল বাদী হয়ে সেলিম ম-লকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। লাশ উদ্ধারের পর হত্যাকারীর বর্ণনা দিয়ে পুলিশ দেশের বিভিন্ন পুলিশ স্টেশনসহ সিমান্তবর্তী থানা ও বিমানবন্দরে বেতার বার্তা পাঠিয়ে দেয়। এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও ওই লাশের ছবি ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম আরও জানান, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাত পৌনে ১টারদিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশ সেলিম ম-লকে গ্রেফতার করে। পরে সেখান থেকে মামলার তদন্তকারী অফিসার মো. আনোয়ার হোসেন সেলিম ম-লকে সিংগাইর থানায় নিয়ে আসে। ওই দিনই সেলিম ম-লের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত তার ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রথম দফা রিমান্ডে হত্যার ক্লু পাওয়ার পর অধিকতর জিজ্ঞাসার জন্য আরও ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত আরও ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। দ্বিতীয় দফা রিমান্ডের চার দিনের মাথায় বুধবার সেলিম ম-ল আদালতের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দি দ্বিতীয় স্ত্রী বকুল হত্যার কথা স্বীকার করে।

এদিকে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২০ আগস্ট সেলিমকে যুবলীগের পদ থেকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রিয় কমিটি।