স্ত্রীর মাথা কেটে থানায় মুণ্ডু সহ আত্মসমর্পণ

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের চিকমাগালুর জেলায় এক ব্যক্তি তার স্ত্রীর মাথা বিচ্ছিন্ন করে ব্যাগে ভরে ২০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে পুলিশ স্টেশনে আত্মসমর্পণ করেছেন। জানা গেছে ওই ব্যক্তির নাম সতীশ।

জানা গেছে নয় বছর আগে সতীশ বিয়ে করেন রূপাকে। তাঁদের দুই সন্তান রয়েছে। স্ত্রী রূপার সঙ্গে একই গ্রামের এক ব্যক্তির সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ ছিল। সতীশ পুলিশকে জানিয়েছেন, ঘটনার দিন সন্ধ্যায় তিনি বেঙ্গালুরু থেকে বাড়িতে ফিরে তাঁর স্ত্রী রূপার সঙ্গে ওই ব্যক্তিকে দেখতে পান।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ঘটনাস্থলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীর শিরশ্ছেদ করেন। পরে বিচ্ছিন্ন মাথা ব্যাগে ভরে তাঁর টু-হুইলার নিয়ে ২০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে স্থানীয় থানায় পৌঁছান।

সেখানে ব্যাগ থেকে স্ত্রীর মুণ্ডুর চুলের মুঠি ধরে থানায় ঢুকে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। পরে পুলিশ সতীশকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশ জানায় তাকে ৩০২ ধারা অনুযায়ী খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এখন সে কারাগারে বন্ধী আছে।