হাতিরঝিলে নকশার বাইরে থাকা স্থাপনা সাত দিনের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ

রাজধানীর হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ি প্রজেক্টে লে-আউট প্ল্যানের বাইরে থাকা সব অবৈধ স্থাপনা আগামী সাত দিনের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এসব অবৈধ স্থাপনার নির্মাণ বন্ধে এবং লে-আউট প্ল্যান অনুসারে হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ি প্রজেক্টকে রক্ষার জন্য কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

পাশাপাশি এ এলাকায় প্ল্যান বহির্ভূত কোনও স্থাপনা না বসানোর বিষয়টি রাজউকের চেয়ারম্যান, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার, হাতিরঝিল থানার ওসি ও প্রজেক্ট পরিচালককে প্রতিনিয়ত মনিটরিং করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া, আদালতের এ আদেশ বাস্তবায়নের অগ্রগতি প্রতিবেদন দুই সপ্তাহের মধ্যে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।

শুনানিকালে মনজিল মোরসেদ আদালতকে জানান, হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে সরকার হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ি প্রজেক্ট সম্পূর্ণ করায় জায়গাটি ঢাকার অন্যতম নান্দনিক স্থাপনায় পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন সেখানে ভ্রমণে যান। কিন্তু রাজউক নিষ্ক্রিয় থাকায় সেখানে বেশ কিছু অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে।

পরে শুনানি শেষে আদালত রুল জারি ছাড়াও ওখানকার সব অবৈধ স্থাপনা অপসারণে নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, লে-আউট প্ল্যানের নির্দেশনার বাইরে কিছু অবৈধ প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চললেও এ বিষয়ে রাজউকের নিষ্ক্রিয় থাকা নিয়ে গত ১ আগস্ট গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত ওই প্রতিবেদন সংযুক্ত করে জনস্বার্থে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে রিট করা হয়।