পপি’র উদ্দেশ্যে যা বললেন ওমর সানী

ঢাকাই ছবির অন্যতম জনপ্রিয় ও সুন্দরী অভিনেত্রী পপি। লাস্যময়ী হাসি আর দক্ষ অভিনয় দিয়ে যিনি জয় করে নিয়েছেন অগণিত দর্শকের মন। দীর্ঘ দুই দশকের বেশি সময় ধরে তিনি রূপালি পর্দায় অভিনয় করে চলেছেন। সুদর্শনা এই অভিনেত্রীর জন্মদিন আজ।

পপির জন্মদিনে তার ভক্তরা যেমন শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন, তেমনি সিনেমা অঙ্গনের অনেকেও তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। ১৯৯৭ সালে ওমর সানীর সঙ্গে ‘কুলি’ ছবিতে অভিনয় করে রাতারাতি তারকা বনে যান পপি। তাই এই নায়ক-নায়িকার মধ্যকার ব্যক্তিগত সম্পর্কটাও দারুণ।তাই পপিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে ভুল করেননি ওমর সানী।

পপির জন্মদিন উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওমর সানী লেখেন, তোকে অনেক যত্নে কুলিতে গড়ে তুলেছিলাম। তোর প্রথম ছবির নায়ক হয়েছিলাম আমি, এ আমার এক অনন্য গর্ব। তুই আমার পরিবারের একজন। তোর প্রতি আমার, মৌসুমীর, আমার পরিবারের সবার ভালোবাসা ছিল, আছে, থাকবে অবিরাম। তুই আরো অনেক দিন মানুষের ভালোবাসা নিয়ে থাকবি, এ কামনা করি। অনেক যত্নে লালন করা সেই মেয়েটি তুই, আমাদের পপি। তোর জন্মদিনে আমার দোয়া ও ভালোবাসা রইলো তোর জন্য। তোর প্রথম ছবির নায়কের তরফ থেকে শুভেচ্ছা, শুভ জন্মদিন পপি।

উল্লেখ্য, পপির জন্ম ১৯৭৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর খুলনায়। তার শৈশব কেটেছে সেখানেই। মডেলিং দিয়ে শুরু করেন শোবিজ ক্যারিয়ার। তৎকালীন লাক্স আনন্দ বিচিত্রার সুন্দরী প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে তিনি পরিচিতি লাভ করেন। এরপর ১৯৯৭ সালে সোহানুর রহমান সোহানের ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’ ছবিতে অভিনয় করেন। তবে পপি অভিনীত প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘কুলি’। মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত এই ছবিতে ওমর সানীর সঙ্গে অভিনয় করে বাজিমাত করেন পপি। ব্যবসায়িক দিক দিয়ে এই ছবি বড় মাইলফলক অর্জন করে।

এরপর একে একে অসংখ্য সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করেন পপি। ২০০৩ সালে কালাম কায়সার পরিচালিত ‘কারাগার’ ছবিতে এক টোকাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন পপি। এই ছবির জন্য তিনি প্রথমবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া ‘মেঘের কোলে রোদ’ ও ‘গঙ্গাযাত্রা’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান পপি।