মালয়েশিয়ায় আট মাসে ৭ হাজার বাংলাদেশি আটক

: জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় ৩০ হাজারের বেশি অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। জানা গেছে আটককৃতদের মধ্যে প্রায় সাত হাজার বাংলাদেশিও রয়েছেন।

অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার বলেন, ৩ আগস্ট পর্যন্ত আটক অবৈধ অভিবাসীদের বেশির ভাগই ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, নেপাল, ভারত, ফিলিপাইন, কম্বোডিয়া ও মায়ানমারের নাগরিক।

তিনি আরও বলেন, এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৯ আগস্টের মধ্যে ৫,৯৫৯ জন বাংলাদেশিকে আটক করা হয়। মালয়েশিয়ায় বসবাসরত কয়েকজন বাংলাদেশি জানায়, ৩০ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত চালানো অভিযানে আটককৃতদের মধ্যে আরও হাজারখানেক বাংলাদেশি রয়েছেন।

দেশটির কোটা কিনাবালু অঞ্চলে অবৈধ অধিবাসী আটক অভিযানের বরাত দিয়ে মুস্তাফার বলেন, অবৈধ অভিবাসীদের কাজ ও আশ্রয় দেওয়ায় ৩ আগস্ট এক হাজারেরও বেশি নিয়োগদাতাকেও আটক করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম ‘বার্নামা’য় দেওয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, দেশ জুড়ে ১০,০০০ এর বেশি অভিযান পরিচালনা করে প্রায় এক লাখ বিদেশি শ্রমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে অবৈধ শ্রমিকদের আটক করা হয়েছে।

এর আগে অভিবাসীদের আত্মসমর্পণ করার আহবান জানিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পরিচালনা করে অভিবাসন বিভাগ। এতে সাড়া না পাওয়ায় এই ধরপাকড় চলছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

‘বহু অভিযান পরিচালনা করা হলেও এখনও অনেক অবৈধ অভিবাসী রয়ে গেছেন।’ এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘অভিবাসন সমস্যা নিয়ে আমরা কোনো আপস করতে চাই না। এতে দেশের নাগরিকদের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়তে পারে। এছাড়া মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারের সম্ভাবনা রয়েছে। মালয়েশিয়াকে অবৈধ অভিবাসী মুক্ত করতে দেশজুড়ে এ অভিযান চলবে।’

এ ব্যাপারে কুয়ালালামপুরে অবস্থিত বাংলাদেশি দূতাবাসের এক কর্মকর্তা বার্নামাকে বলেন, মালয়শিয়ায় বসবাসরত ১০ লাখ বাংলাদেশ অভিবাসীর মধ্যে প্রায় ৫০ শতাংশই অবৈধ।