বর্ষার পর এ মাসে বন্যার আশঙ্কা

কাগজে-কলমে আষাঢ় ও শ্রাবণে ভর করে বর্ষা বিদায় নিলে প্রকৃতির নিয়মে আশ্বিনের কিছুটা জুড়েও বৃষ্টিপাত হয়। আজ সোমবার ভাদ্রের ১৯ তারিখ। এখন শরৎকাল (ভাদ্র-আশ্বিন)। কিছুটা খরার পর গতকাল রোববার থেকে ফের সক্রিয় হয়েছে মৌসুমি বায়ু (বর্ষা)। প্রায় সারাদেশেই কম-বেশি বৃষ্টি হচ্ছে। থেকে থেকে হালকা বৃষ্টির দেখা মিলছে রাজধানীতেও।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, এই সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয়ার্ধ থেকে শেষ অবধি দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি বন্যা হতে পারে। দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দিতে আবহাওয়া অধিদফতরের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি এই পূর্বাভাস দিয়েছে।

বিশেষজ্ঞ কমিটির চলতি মাসের পূর্বাভাস প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে। এ ছাড়া এ মাসে বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দুটি মৌসুমি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে।

সদ্য শেষ হওয়া আগস্ট মাসে সারাদেশে স্বাভাবিকের চেয়ে ৩৬ দশমিক ৩ শতাংশ কম বৃষ্টিপাত হয়েছে। তবে ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হয়েছে। গত মাসের ৬, ১৩ ও ১৯ তারিখে তিনটি লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় বাংলাদেশে ওপর মৌসুমি বায়ু দুর্বল হয়ে পড়ে। এ জন্যই মূলত বৃষ্টি কম হয়। আগস্ট মাসে ঢাকা বিভাগে ৪৫ দশমিক ৫ শতাংশ বৃষ্টিপাত কম হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে তা দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় বিরাজমান রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর সোমবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানিয়েছে, ঢাকা, রংপুর, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় ৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে মাদারীপুরে ৬৩ মিলিমিটার। সোমবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহী ও ঈশ্বরদীতে ৩৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।