বিলুপ্তপ্রায় ১৮ প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদনে সফল বিএফআরআই

 স্বাদুপানির ২৬০টি মৎস্য প্রজাতির মধ্যে ৬৪টি প্রজাতি বর্তমানে বিপন্ন। গত ৮ বছরে বিপন্ন প্রজাতির এসব মাছের মধ্যে কৃত্রিম ও নিয়ন্ত্রিত প্রজননের মাধ্যমে পাবদা, গুলশা, টেংরা, শিং, মাগুর, চিতল, ফলি, কুচিয়া, মহা শোল, কৈ, পুঁটি, আইড়, মেনি, খলিশা, গুতুমসহ ১৮ প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদনে সফলতা পেয়েছে মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই)। এমনটাই জানিয়েছেন সংস্থাটির মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ।

তিনি বলেন,  উপকূলীয় অঞ্চলের মৎস্যসম্পদ উন্নয়নেও আমরা বর্তমানে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছি। উপকূলীয় অঞ্চলের মৎস্যসম্পদ উন্নয়নে ক্ষেত্রে আমরা এখনও মূলত চিংড়িকেই বুঝি। কিন্তু, চিংড়ি ছাড়াও উপকূলীয় এলাকায় আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ সুস্বাদু মাছ রয়েছে। যেমন পারশে, দাতিনা, চিত্রা, তোপসে, নোনা টেংরা, কাইন মাগুর ইত্যাদি।

এ বিষয়ে মৎস্য ও প্রাণি সম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এক সেমিনারে জানিয়েছেন, অভ্যন্তরীণ উন্মুক্ত জলাশয়ে মৎস্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান এখন বিশ্বে ৩য় এবং মিঠাপানির মাছ উৎপাদনে বিশ্বে ৪র্থ। ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম। মাছের উৎপাদনে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই) গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

ইতোমধ্যে বিলুপ্ত প্রায় স্বাদু পানি এবং লোনা পানির মাছ উৎপাদনে অনেক সাফল্য লাভ করেছে। বিলুপ্তপ্রায় ৬৪ প্রজাতির মাছের ইতোমধ্যে বিএফআরআই কর্তৃক ১৮ টি মাছের প্রজনন ও চাষাবাদ কৌশল উদ্ভাবন করা হয়েছে।এছাড়াও পারশে ও নোনা টেংরার প্রজনন কৌশল উদ্ভাবন করে পোনা উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছে। আমি পাইকগাছাস্থ লোনাপানি কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে ইনস্টিটিউট কর্তৃক উৎপাদনকৃত পারশে মাছের পোনা চাষীদের নিকট বিতরণ করে এসেছি। পারশে পোনা তৈরির ফলে চিংড়ির সাথে ঘেরে পারশে চাষ করে চাষীরা আর্থিকভাবে অধিক লাভবান হতে পারবে।

তিনি আরো বলেন, গত অর্থবছর থেকে ইনস্টিটিউট ভেটকী, কাইন মাগুর, দাতিনা এবং চিত্রা মাছের প্রজনন ও চাষাবাদের উপরও গবেষণা শুরু করছে। এসব মাছের পোনা উৎপাদন ও চাষাবাদ কৌশল উদ্ভাবন করা সম্ভব হলে উপকূলীয় অঞ্চলে এসব মাছের উৎপাদন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পাবে। একইসাথে, কাঁকড়াসম্পদ উন্নয়নেও বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট বর্তমানে কাজ করছে। আমি জেনে খুশী হয়েছি, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট এ বছর থেকে হরিণা ও চাকা চিংড়ি নিয়ে গবেষণা শুরু করতে যাচ্ছে।