প্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণ : এখনও অধরা সেই বাসচালক

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা:  টাঙ্গাইলে বাসে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনার ৭২ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও গ্রেফতার হয়নি ধর্ষক বাসচালক আলম।

এদিকে ধর্ষণের শিকার ওই প্রতিবন্ধী তরুণীর বাড়ি কুষ্টিয়ায় বলে শনাক্ত করা গেলেও তার বাবা বা গ্রামের নাম এখনও জানা যায়নি।

ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেলেও এ ঘটনায় জড়িত বাসের হেলপার নাজমুল ব্যাতীত চালক আলম এবং সুপারভাইজার বিষুকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টাঙ্গাইল থেকে ছেড়ে আসা একটি বাস যাত্রী নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপাড় বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছায়। সবাই নেমে যাওয়ার পরও বাসস্ট্যান্ডে থাকা গাড়িটিতে প্রায় ২৮ বছরের এক প্রতিবন্ধী তরুণী বসেছিলেন।

ফাঁকা বাসে ওই তরুণীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে বাসচালক, সুপারভাইজার ও হেলপার। এ সময় ওই তরুণীর চিৎকার শুনে মহাসড়কে টহলরত পুলিশ থেমে থাকা বাসটি থেকে হাতেনাতে হেলপারকে ধরতে সক্ষম হয়। তবে চালক ও সুপারভাইজার বাস থেকে পালিয়ে যায়।

এ প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন জানান, বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপাড় বাসস্ট্যান্ডে বাসে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণে ঘটনার মূলহোতা বাসচালক আলমকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ধর্ষককে আইনের আওতায় আনার চেষ্টায় সম্ভাব্য সকল স্থানে পোশাকধারী পুলিশ অভিযান পরিচালনা করেছে। থানা পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকের পুলিশও কাজ করছে।

এর আগে এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরে আলম বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। শুক্রবারই বাসের হেলপারকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।