আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৬ মাস নিষিদ্ধ হচ্ছেন সাব্বির!

দুই দিন আগে কঠোর শাস্তির ঘোষণা দিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি ‍নাজমুল হাসান। তাই ডিসিপ্লিনারি কমিটি তিন খেলোয়াড়কে তলব করায় পাওয়া গিয়েছিল বড় শাস্তির ইঙ্গিত। শনিবার ডিসিপ্লিনারি কমিটির সাব্বির রহমানকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞার সুপারিশে সেটারই প্রমাণ মিললো।

শনিবার সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসনকে তলব করেছিল বিসিবি। সাব্বির ও মোসাদ্দেকের শুনানি হলেও নাসিরকে পরে ডাকা হবে বলে জানিয়েছেন ডিসিপ্লিনারি কমিটির সদস্য ইসমাইল হায়দার মল্লিক। বিসিবির এই পরিচালক শাস্তির ব্যাপারে জানিয়েছেন, তারা বোর্ডের কাছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাব্বিরকে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞার সুপারিশ করেছেন। অন্যদিকে মোসাদ্দেককে আপাতত কোনও শাস্তি না দিয়ে সতর্ক করেছেন এবং তাকে নজর রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন সময়ে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে শিরোনামে এসেছেন সাব্বির। সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে এক ভক্তকে উদ্দেশ্য করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘অশালীন বক্তব্য’ ও ‘ভয়-ভীতি’ দেখানোর বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে আমলে নিয়েছে বিসিবি। মল্লিক বলেছেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের সময় ভক্তকে উদ্দেশ্য করে বাজে মন্তব্যের শাস্তি হিসেবেই আমরা সাব্বিরকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করেছি।’

অতীতে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য শাস্তি পাওয়ার পরও সাব্বির নিজেকে না শুধরানোর কারণে ডিসিপ্লিনারি কমিটি তার বিরুদ্ধে কঠিন হয়েছে। এরপরও যদি একই ধরনের ঘটনার পুনারাবৃত্তি করেন এই ব্যাটসম্যান, তাহলে শাস্তি আরও বড় হবে বলে জানিয়েছেন মল্লিক।

বাংলাদেশের ক্রিকেটে সবশেষ বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন মোসাদ্দেক। এই অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী যৌতুক বিরোধী আইনে মামলা করার পর ডিসিপ্লিনারি কমিটি তাকে ডেকে পাঠায়। বিষয়টি ব্যক্তিগত হলেও বিসিবির চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড় হওয়ায় বাংলাদেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা গুরুত্ব দিয়েই আমলে নেয়। আপাতত তার বিরুদ্ধে শাস্তির সুপারিশ না করলেও নজরে রাখবে কমিটি।

মোসাদ্দেকের ব্যাপারে মল্লিক বলেছেন, ‘আপাতত আমরা তার বিরুদ্ধে কোনও অ্যাকশনে যাচ্ছি না। তাকে আমরা সতর্ক করেছি। তবে সে আমাদের নজরে থাকবে। ভবিষ্যতে যদি আবার এই ধরনের বিষয়ের পুনরাবৃত্তি হয়, তাহলে বড় শাস্তি ভোগ করতে হবে তাকে।’