সেপ্টেম্বর মাসেই গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণা হবে: আইনমন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : ‘এই সেপ্টেম্বর মাসেই গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণা হবে’ বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

শুক্রবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় আখাউড়া পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকায় জনসংযোগকালে স্থানীয় জনগণের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আনিসুল হক এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার মেশিন না, জনগণের ওপর ভর করে ক্ষমতায় আসে।

আওয়ামী লীগ ইভিএম মেশিনের মাধ্যমে ভোট জালিয়াতি করে ক্ষমতায় আসে বলে মন্তব্য করেছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তারই জবাবে আজ আইনমন্ত্রী এসব কথা বললেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘আমি একটা কথা বলি, উনারা, বিশেষ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম কথা বলেন যেগুলোর সঙ্গে তথ্যের সঙ্গে, সত্যের সঙ্গে কোনো মিল নাই। উনি বলছেন যে, আমরা মেশিনের ওপরে ভর করেছি। আমি উনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, আওয়ামী লীগ সব সময় জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে। এবং জনগণ প্রত্যক্ষভাবে ভোট দিয়েছে। কোনো মেশিন দ্বারা ভোট দেয় নাই। আর বিএনপি সব সময়ই প্যালেস কন্সপেরেসি (প্রাসাদ ষড়যন্ত্র) করে ক্ষমতায় এসেছে। তো কথা হচ্ছে, আমরা জনগণের ওপরে ভর করি। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হব ইনশাল্লাহ।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুজ্জামান, যুগ্ম আহ্বায়ক সেলিম ভূঁইয়া, স্থানীয় চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন, আখাউড়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মহিউদ্দিন মিশু, ছাত্রলীগ সভাপতি সৈয়দ তানজিল শাহ্ তচ্ছন, শামীম মোল্লা প্রমূখ।

প্রসঙ্গত, আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের তোড়জোড় শুরু হয় ঈদুল আজহার পর। গতকাল বৃহস্পতিবার ইভিএম ব্যবহারের সুযোগ রেখে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ বা আরপিও সংশোধনের প্রস্তাব করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী নির্বাচনে ১০০ আসনে এই যন্ত্রটি ব্যবহারের কথা ভাবছে ইসি। তবে রাজপথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি এর বিরোধিতা করে আসছে। এই যন্ত্রটির মাধ্যমে আওয়ামী লীগকে জিতিয়ে দিতে নির্বাচন কমিশন ষড়যন্ত্র করছে বলেও অভিযোগ করেছে বিএনপি।