পান্ডিয়ার বোলিংয়ে দ্বিতীয় দিনও ভারতের

প্রথম দুই টেস্টে ছিল ইংল্যান্ডের দাপট, আর হতাশায় ডুবেছিল ভারত। ট্রেন্টব্রিজে পাল্টে গেছে দৃশ্য। তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে ম্যাচের অবস্থা বলছে সেটাই। ইংল্যান্ডের ওপর ছড়ি ঘোরাচ্ছে ভারত।

ভারতকে ৩২৯ রানে অলআউট করে হার্দিক পান্ডিয়ার তোপের মুখে পড়েছে ইংল্যান্ড। এক সেশনেই তারা গুটিয়ে যায় ১৬১ রানে। মাত্র ৩৮.২ ওভার টিকে ছিল তাদের প্রথম ইনিংস। ১৬৮ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নেমে ব্যবধানটা দুইশ’র বেশি করেছে ভারত। ২ উইকেটে ১২৪ রান তাদের, লিড ২৯২ রানের।

৬ উইকেটে ৩০৭ রানে রবিবার খেলা শুরু করে ভারত। আর ২২ রান যোগ করে ফিরে যান বাকি চার ব্যাটসম্যান। প্রথম ইনিংসে ভারতের বাকি চার উইকেট সমানভাবে ভাগাভাগি করে নেন জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড। এতে ক্রিস ওকসের সঙ্গে তারাও সমান তিনটি করে উইকেট নিয়ে এই ইনিংসে ইংল্যান্ডের সফল বোলার।

লাঞ্চের ঘণ্টাখানেক আগে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। অ্যালিস্টার কুক ও কিটন জেনিংসের ব্যাটে কোনও উইকেট না হারিয়ে ৪৬ রানে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় সেশনে ফিরে তোপের মুখে পড়ে তারা। ৫৪ রানে টানা দুই ওভারে দুই ওপেনার ফিরে যান। কুক ২৯ ও জেনিংস ২০ রানে ফেরেন।

ইশান্ত শর্মা ও জশপ্রীত বুমরা প্রথম দুটি উইকেট তুলে নেন। পরে তারা আরও একটি করে উইকেট শিকার করেছেন। মাঝখানে হার্দিক পান্ডিয়ার গতিতে বিপর্যস্ত ইংল্যান্ড। ২৪ বছরের এ ডানহাতি মিডিয়াম ফাস্ট বোলার জোড়া আঘাত হেনেছেন দুইবার। মাত্র ৬ ওভারে এক মেডেনসহ ২৮ রান দিয়ে টেস্টে প্রথমবার ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন পান্ডিয়া।

এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৬০ রান করে ভারত। ৩৩ বলে ৭ চারে ৩৬ রান করে লোকেশ রাহুল বোল্ড হন বেন স্টোকসের কাছে।

৬ রানের আক্ষেপ নিয়ে আদিল রশিদের বলে জনি বেয়ারস্টোর শিকার হন শিখর ধাওয়ান। ভারতের এই ওপেনার ৬৩ বলে ৪৪ রান করেন ৬ চারে। চেতেশ্বর পুজারা ৩৩ ও বিরাট কোহলি ৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।