দৌলতদিয়ায় অপেক্ষার শেষ কোথায়?

রাজবাড়ী সংবাদদাতা : রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাটে আজও নদী পারের অপেক্ষায় আটকে আছে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন। রোববার সকাল সোয়া ৮টার দিকে বিআইডব্লিউটিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

জানা গেছে, নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল ব্যহত হওয়ায় যানবাহন পারাপারে দ্বিগুন সময় লাগছে। আর এতেই এ সিরিয়াল তৈরি হচ্ছে।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পশুবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস পারাপার করা হচ্ছে।

চালকরা জানান, তারা অনেকে মধ্যরাত বা ভোরের দিকে দৌলতদিয়া প্রান্তে এসে আটকা পড়েছেন। প্রচণ্ড গরমে যাত্রী ও তারা অতিষ্ট হয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে নদী পারের আপেক্ষায় আটকে থেকে সময়মতো ঢাকায় পৌঁছতে পারছে না গাড়িগুলো। ফলে ঢাকা থেকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

গরুর মালিক ও ব্যবসায়ীরা জানান, লাখ লাখ টাকার গরু নিয়ে তারা একটু লাভের আশায় ঢাকায় যাচ্ছেন। কিন্তু দৌলতদিয়া প্রান্তে এসে ফেরির জন্য এই গরমে গরু নিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে তাদের। ফলে গরুগুলোও গরমে কষ্ট পাচ্ছে। পশুবাহী গাড়ির সিরিয়াল আগে দিলেও অপেক্ষার যেন শেষ নেই।

বিআইডব্লিটিসি দৌলতদিয়া ঘাট সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. খোরশেদ আলম জানান,পদ্মায় তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল ব্যহত হচ্ছে। এর উপর বাড়তি চাপ রয়েছে রাজধানীমুখি পশুবাহী ট্রাক ও ঘরমুখো যাত্রীবাহী বাসের। নদী পারাপারে ফেরির দ্বিগুন সময় লাগায় এ প্রভাব পড়েছে। বর্তমানে এ রুটে ছোট-বড় ২০টি ফেরি চলাচল করছে।