কাঠবিড়ালির বাচ্চার ভয়ে পুলিশকে ফোন

ফুলকি ডেস্ক : একটা বাচ্চা কাঠবিড়ালির কাছ থেকে রেহাই পেতে এক ব্যক্তিকে পুলিশের সাহায্য নিতে হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান। খবরে বলা হয়, জার্মানির পুলিশ জরুরি সেবা বিভাগে কল করে বৃহস্পতিবার এক ব্যক্তি জানান একটি কাঠবিড়ালির বাচ্চা তাকে রাস্তায় তাড়া করে বেড়াচ্ছে। এটি কিছুতেই তাকে শান্তি দিচ্ছে না। কার্লসরুহির পুলিশ জানায়, ওই ব্যক্তি নিরুপায় হয়ে তাদের ফোন করে। তবে অভিযোগকারীর নাম গোপন রাখা হয়েছে। খবর পেয়ে, পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেলে দেখতে পায় কাঠবিড়ালিটি ওই ব্যক্তিকে তখনো তাড়া করে ফিরছে। তবে নাটকীয়তা আরও বাড়বার আগেই কাঠবিড়ালির ছানাটি ক্লান্ত হয়ে শুয়ে পড়ে এবং ঘুমিয়ে যায়।

কর্তব্যরত পুলিশ দয়ার বশে কাঠবিড়ালিটিকে আশ্রয় দেন। তারা মনে করছেন, ছানাটি কোনভাবে তার মায়ের কাছ থেকে বিছিন্ন হয়ে পড়েছিল এবং নতুন আশ্রয়ের খোজে ওই ব্যক্তিকে তাড়িয়ে বেড়াচ্ছিল। পুলিশের মুখপাত্র ক্রিস্টিন ক্রেঞ্জ বলেন, মা হারানো কাঠবিড়ালি অনেক সময় আশ্রয়ের জন্য নতুন কাউকে খোজে এবং তারা একজনকে লক্ষ্য করেই ঘুরতে থাকে।

তিনি বলেন, এই প্রাণীটি খুবই নাছোড়বান্দা প্রকৃতির হয়। তারা কেবল একজনের পিছনেই দৌড়তে থাকে না, বরং তাকে সারাক্ষণ অনুসরণ করে। আক্রান্ত ব্যক্তি কী করবেন বুঝতে না পেরে পুলিশকে ফোন দেন।

কিন্তু সতর্ক হওয়ার পরিবর্তে পুলিশ কাঠবিড়ালিটিকে দেখে মজা পেয়ে যায়। ক্রেঞ্জ জানান, তারা কাঠবিড়ালিকে তাদের ম্যাসকট বানানোর পরিকল্পনা করছেন। এটির নাম রাখা হবে কার্ল-ফ্রাইড্রিখ।

পুলিশ কাঠবিড়ালিকে প্রথমে পুলিশ কাস্টডিতে এবং পরে একটি প্রাণী সুরক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেটি সেখানে বর্তমানে ভালো আছে বলে জানায় গার্ডিয়ান।