খালেদা জিয়ার জবানবন্দি বই আকারে প্রকাশ, ২ জন গ্রেফতার

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যে জবানবন্দী দিয়েছিলেন সেই জবানবন্দির কপি আদালতের অনুমতি ছাড়াই বই আকারে প্রকাশ করার দায়ে দুইজনকে গ্রেফতার করেচে র‌্যাব। এসময় ৪৮৫টি বইও জব্দ করা হয়। গ্রেফতার কৃতরা হলেন- আব্দুর রহমান নূর রাজন (৩২) ও মেহেদী আরজান ইভান (৩৭)।

বুধবার দুপুরে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান জানান, মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব বই এবং অভিযুক্ত দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। মুদ্রন আইনে এটি অপরাধ হয়েছে। তাই তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান তিনি। প্রাথমিকভাবে গ্রেফতার দু্ইজন জানিয়েছে যে আদালত এবং বিচার বিভাগ নিয়ে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্যই এই বই প্রকাশ করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত রাজন ও ইভান মূলত অনলাইন এক্টিভিস্ট ও সাইবার এনালিস্ট। তাদের কাছ থেকে জব্দ মোবাইল ও ল্যাপটপ থেকে সাম্প্রতিক ছাত্র আন্দোলনের বিষয়ে ফেসবুক উস্কানির বিভিন্ন পোস্ট পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, একটি গুরুত্বপূর্ণ মামলার তথ্য গোপণ করে আদালত বা যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে মিথ্যা, বিকৃত ও অসত্য তথ্য সম্বলিত একটি বই সিলেটের একটি ছাপাখানায় প্রকাশ করে ঢাকায় বাজারজাত করতে চেয়েছিল। আদালত সম্পর্কে জনমনে বিভ্রান্তি ও অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করে রাজনৈতিক ফায়দা লুটার চেষ্টা করেছিল মহলটি।

প্রথামিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, বইটি ছাপাখানা ও প্রকাশনা সহযোগি হিসেবে ইভান, ওয়াসিম ইফতেখারুল হক, শিপন মোল্লা, বৈরাম খাঁ ওরফে রেজওয়ানুল হক শোভন এবং আব্দুর রব চৌধুরী কাজ করছিল। আদালতের অনুমতি ছাড়াই তারা একে অপরের সহায়তায় বিচারাধীন একটি মামলার গুরুত্বপূর্ন এক আসামীর জবানবন্দি, মামলার এজাহার ও অভিযোগপত্র নিজ উদ্যোগে সংগ্রহ করে কতিপয় সুশীল সমাজের মন্তব্য সন্নিবেশ করে তা গোপণে প্রকাশ করেছিল।

ডিআইজি মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান বলেন, এর পেছনে কোন রাজনৈতিক নেতা কিংবা আরো কেউ জড়িত আছে কি না, বিষয়টি যাচাই-বাছাই চলছে বলেও জানান ।