আশুলিয়ায় আন্দোলনরত ৪ শিক্ষার্থী আটক

আশুলিয়া ব্যুরো : আশুলিয়ায় শিক্ষার্থীদের রোড ব্লকের মূহুর্তে উই ওয়ান্ট জাস্টিজ লেখা প্লাকার্ড বহণ ও ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার দায়ে আন্দোলনে অংশগ্রহণকৃত ৪ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। তথ্য প্রযুক্তির আইসিটি আইনের মামলায় আটককৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটায় আশুলিয়ার গাজীরচট, ডেন্ডাবর ও শ্রীপুর এলাকা থেকে হাবিব, আলিফ, রিয়াদুল ইসলাম রাব্বি সহ ৪ জনকে তাদের বাসা থেকে আটক করে বুধবার সকালে আটককৃত ওই শিক্ষার্থীদের আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে আটককৃত হাবিবের মা লাবনী বেগম বলেন, সোমবার দক্ষিন গাজীরচট এলাকার তাদের বাসায় রাত আড়াইটায় এসআই মুকীব এর নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালানোর কথা বলে প্রবেশ করেন। এসময় তার ছেলে মানিকগঞ্জ দেবেন্দ্র কলেজের বিবিএ শিক্ষার্থী হাবিব কে আটক করে পুলিশ। তার ল্যাপটপও সাথে নিয়ে যায়। হাবিব ৪ আগষ্ঠ আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উপস্থিত ছিলেন। ওই সময় সে উই ওয়ান্ট জাস্টিজ লেখা একটি প্লাকার্ড বহণ করেছিল। ওই প্লাকার্ড বহণের একটি ছবিও সে তার ফেসবুক আইডিতে পোষ্ট করেছিল। এ ছাড়া তার ছেলে কোন অপরাধ করেনি বলেও সে দাবি করেন।

এদিকে আটককৃত আলিফের পরিবার জানায়, আলিফ এইচএসসি ফলপ্রার্থী। সে আশুলিয়ার পলাশবাড়ি হাবিব ক্লিনিকে পার্টটাইম একটি জব করেন। এ আয় দিয়েই তার লেখা-পড়া চলে। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বাইপাইলে সেও হাজির হয়েছিল। তার সাথে আটককৃত হাবিবের সখ্যতা রয়েছে। পাশাপাশিই থাকেন ওরা। ফেসবুকে ওদের ফ্রেইন্ড রয়েছে। আলিফ স্বণির্ভর ধামসোনা ইউপি’র ৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। পুলিশ তাকে গভীর রাতে আটক করে থানায় নিয়ে যায় এবং আইসিটি আইনে মামলায় আদালতে প্রেরণ করে। রিয়াদুল ইসলাম রাব্বি ও বাইপাইলে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে হাজির হয়েছিল। তাকে শ্রীপুর এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। ঘটনায় অপর আরো একজনকে আটক করে গতকাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। জানতে চাইলে, আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আউয়াল বলেন, ৪ জনকে তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে এরা শিক্ষার্থী কিনা তা তিনি জানেন না।