শিক্ষার্থীদের আন্দোলন উপলক্ষে সকল হামলা একই সুত্র গাঁথা: হাছান মাহমুদ

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের গাড়ি বহরে, আওয়ামী লীগ অফিসে, পুলিশের উপর এবং সাংবাদিকদের উপর হামলা একই সূত্রে গাঁথা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত ‘বিএনপি-জামায়াত ১/১১’কুশীলবদের দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির প্রতিবাদে’ আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহবানে শিক্ষার্থীরা যখন ঘরে ফিরে গেছে তখন যারা এই আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চেয়েছিল তাদের খেলা শেষ হয়ে যাচ্ছে বুঝতে পেরে ঢাকা শহরের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ২৫-৩০ বছরের যুবকদেরকে স্কুলের ড্রেস পরিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থী বানিয়ে সমাবেশ করে দাবি আদায়ের জন্য তারা আওয়ামী লীগ অফিস অভিমুখী মিছিল নিয়ে গেলেন কেন?

দাবি আদায়ের জন্য তো তারা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সচিবালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দিকে যেতে পারতেন। তা না করে তারা যখন আওয়ামী লীগ অফিসের দিকে গেলেন তখন কারো বুঝতে বাকি নাই তারা একটি সংঘাত তৈরি করে আরও কিছু লাশ বানাতে চেয়েছিল। যেটি করতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। পুলিশ তা নশ্যাৎ করে দিয়েছে। সুতরাং বার্নিকাটের গাড়ি বহর, আওয়ামী লীগ অফিস, সাংবাদিক এবং পুলিশের উপর দুস্কৃতিকারীদের হামলা একইসূত্রে গাঁথা। কিছুদিনের মধ্যেই সব থলের বিড়াল বেড়িয়ে আসবে।

‘আমির খসরুর ফোন আলাপ এটি কোন অপরাধ নই’ বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলামের সংবাদ সম্মলনে দেওয়া এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে সাবেক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তার এই বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি স্বিকার করে নিয়েছেন বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে এই ষড়যন্ত্রের সাথে যুক্ত হয়েছে।

সরকারের কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, এখনো আমির খসরু মাহমুদ, ফজলুল হক মিলন, মাহমুদুর রহমান মান্নাকে কেনো গ্রেফতার করা হয় নাই? এবং দেশবাসীর পক্ষ থেকে যারা এই আন্দোলনে উস্কানি দিয়েছে তাদের সবাইকে গ্রেফতারের জোর দাবি জানাই।

আওয়ামী লীগের সমস্ত পর্যায়ের নেতাকর্মীদের অনুরোধ জানিয়ে তিনি আরও বলেন, সমস্ত উস্কানির মধ্যেও আমাদেরকে শান্ত থাকতে হবে। সরকার ব্যবস্থা গ্রহণ করছে এবং এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে যদি দল আহবান করে সেক্ষেত্রে প্রতিরোধ গড়ে তুলার জন্য আহবানও জানান তিনি। ব্যারিষ্টার জাকির আহম্মদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন, সাধনা দাশ গুপ্তা,আল মামুন সরকার, বলরাম পোদ্দার, শাহাদাত হোসেন টয়েল, জিন্নাত আলি খান জিন্নাহ প্রমুখ।