বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের বিচার ৩০২ ধারায় সম্ভব

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের বিচার দ-বিধির ৩০২ ধারায় সম্ভব বলে মনে করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সোমবার (৬ আগস্ট) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনাকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হত্যাকা- হিসেবে ধরে নিয়ে দ-বিধির ৩০২ ধারায় বিচারের সুযোগ রয়েছে।’ এদিকে, দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হকও একই কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘ওই সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়টি নতুন আইনে বিচারের সুযোগ নেই। বিদ্যমান আইনেই সেটা হবে। আর বিদ্যমান আইনে পেনাল কোডের ৩০২ ধারার অধীনে এ ঘটনার বিচারের সুযোগ রয়েছে।’

সোমবার সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত সড়ক পরিবহন আইনের বিভিন্ন ধারা ও তার শাস্তির বিধান ব্যাখ্যা করেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি সড়ক দুর্ঘটনায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্টে স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় চালকের শাস্তির বিধানের ব্যাখ্যা দেন।

মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত আইন প্রসঙ্গে সড়কমন্ত্রী বলেন, ‘এই আইনে সর্বোচ্চ শাস্তির কথা বলা হয়েছে। এটা কিন্তু অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী নির্ধারণ করা হবে। সর্বোচ্চ শাস্তি যদি বলুন, তাহলে হত্যার উদ্দেশ্যে যানবাহন চালানো বা ডেলিভারেট ক্লিলিং (ইচ্ছাকৃতভাবে হত্যাকা-) হয়, তাহলে সেই অবস্থায় এই মামলাটি চলে যাবে পেনাল কোডের ৩০২ ধারায়। আর এই ধারার সর্বোচ্চ শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদ-। অর্থাৎ তদন্তে যদি প্রমাণিত হয়, হত্যার উদ্দেশ্যের যানবাহন চালানো হয়েছে, তাহলে সেই মামলা পেনাল কোডের ৩০২ ধারায় চলবে।’ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর বাসচাপায় নিহতের বিচার পেনাল কোডের ৩০২ ধারা প্রযোজ্য হতে পারে মন্তব্য করে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘যে অ্যাক্সিডেন্ট হয়েছে, সে ঘটনায় বাসচালক রিমান্ডে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। তার ওই স্বীকারোক্তি অনুযায়ী যদি তদন্তে প্রমাণিত হয় যে, এটা একটা ডেলিভারেট ক্লিলিং, তাহলে সেই অবস্থায় এই মামলাটি চলে যাবে পেনাল কোডের ৩০২ ধারার অধীনে। যার শাস্তি মৃত্যুদ-।’ তবে,  এই দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলা সোমবার মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত আইনে হবে, না বিদ্যমান আইনে হবে, তা পরিষ্কার করে বলেননি ওবায়দুল কাদের।

এদিকে, এ বিষয়ে আইনি ব্যাখ্যা জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের সামনে যে দুর্ঘটনা ঘটেছে, সেখানে নতুন আইন কার্যকর হবে না। নতুন আইনের আগেই ঘটনা ঘটেছে। তাই ঘটনার সময় যে আইন রয়েছে, সেই আইনটি এক্ষেত্রে কার্যকর হবে। তবে, নতুন আইনে যেমনটি হত্যার উদ্দেশ্য গাড়ি চালনাকে ৩০২ ধারার অধীনে বিচারের কথা বলা হয়েছে, বিদ্যমান আইনেও সেই সুযোগ আছে। এর অর্থ সড়ক পরিবহনমন্ত্রী যেটা বলেছেন তা হচ্ছে, যে আইন এখন বলবৎ রয়েছে সেই আইনেও এটা ৩০২ ধারার অধীনে বিচার হতে পারে। তবে এটা সম্ভব কিনা, তা তদন্ত প্রতিবেদন এলেই বলা যাবে।’ তদন্ত প্রতিবেদনে যদি সুস্পষ্টভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে গাড়ি চালানোর  বিষয়টি প্রমাণিত হয়, তবে ওই ধারায় চলবে বলেও মন্তব্য করেন আইনমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, গত ২৯ জুলাই দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে (র‌্যাডিসন হোটেলের উল্টোদিকে) বাসচাপায় রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী আব্দুল করিম সজীব ও দিয়া খানম মীম নিহত হন। এরপর থেকে শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের দাবিসহ নয় দফা দাবিতে রাজধানীতে আন্দোলন শুরু করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার (৬ আগস্ট) মন্ত্রিসভায় ‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮’-এর অনুমোদন দেওয়া হয়।