গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তিনজন রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়িয়ে উসকানি দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার তিনজনের পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা ৭ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। অন্যদিকে আসামিদের আইনজীবী রিমান্ড আবেদন বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম (এসিএমএম) আসাদুজ্জামান নুর প্রত্যেকের পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে রোববার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের সদস্যরা তাদের গ্রেফতার করে।

তারা হলেন- মাহবুবুর রহমান আরমান (৩০), আলমগীর হোসেইন (২৭) ও সাইদুল ইসলাম (৩১)। তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ, মেমরিকার্ডসহ ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড ও গ্রুপসমুহ জব্দ করা হয়েছে। পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম জাগো নিউজকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গ্রেফতার মাহবুবুর রহমান আরমান নিজেকে সাইবার অ্যানালিস্ট বলে পরিচয় দিয়েছে। সে সাইবার মাহবুব নামেও পরিচিত। সাইবার সেবা দানের কথা বলে ঋরমযঃ ঋড়ৎ ঝঁৎারাড়ৎং জরমযঃ : ঋঝজ নামে একটি গ্রুপ খোলে মাহবুব। এছাড়াও সাইদুল ইসলাম ও আলমগীর হোসেন নিজেদের ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে সহিংসতার পক্ষে গুজব রটিয়েছে।

নাজমুল ইসলাম আরও জানান, গ্রেফতার তিনজন বিভিন্ন সময় ফেসবুক লাইভ ও পোস্টসহ নানা কন্টেন্ট শেয়ার করে আন্দোলনকে সহিংস করতে ভূমিকা রেখেছেন বলে তদন্তে জানা গেছে। রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আসল উদ্দেশ্য জানা যাবে।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে গুজব ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়িয়ে ধ্বংসাত্মক কার্যক্রমের উসকানিদাতা হিসেবে ২৮টি ফেসবুক ও টুইটার আইডি শনাক্ত করেছে পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ। তাদের বিরুদ্ধে গত ২ আগস্ট রাজধানীর রমনা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ।

গ্রেফতার তিনজনকে রমনা থানার সাইবার আইনে দায়ের করা ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।