গণধর্ষণে মারা গেল গর্ভবতী ছাগল, ঘটনাকে স্বাভাবিক বললেন তসলিমা নাসরিন

ফুলকি ডেস্ক: হরিয়ানার মেওয়াট শহরে ঘটে যাওয়া গর্ভবতী ছাগলের গণধর্ষণের ঘটনা নিয়ে মন্তব্য করলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। সাফ জানিয়ে দিলেন যে ছাগলের গণধর্ষণের মতো ঘটনা অস্বাভাবিক কিছু নয়। ছাগল এবং মেয়েদের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই বলেও দাবি করেছে তসলিমা।

আট বিকৃত মস্তিস্ক পুরুষের যৌন লালসার শিকার এক ছাগল। পুলিশ অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। বাকি অভিযুক্তদের সন্ধান চালানো হচ্ছে। এই ঘটনা পশুপ্রেমীদের মধ্যে আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। তাদের মন্তব্য, এই ঘটনা প্রমাণ করে দিয়েছে দেশে শুধু মহিলা কেন, পশুরাও আর নিরাপদ নয়।

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, ঘটনার সময় ওই আটজন মদ্যপ অবস্থায় ও ড্রাগে আচ্ছন্ন ছিল। স্থানীয় একটি বাড়ি থেকে ছাগলটিকে চুরি করে তার উপর রাতভর পাশবিক অত্যাচার চালায় ওই আটজন। তাদের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে মারা যায় ছাগলটি। মেডিক্যাল পরীক্ষায় গণধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে। আরও মর্মান্তিক ঘটনা হল, ওই ছাগলটি গর্ভবতী ছিল।

ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার গভীর রাতে নিজের মত প্রকাশ করেছেন তসলিমা। নিজের ভেরিফায়েড ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। চেনা ছন্দে আক্রমণ করেছেন পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বিকৃত মানসিকতাকে। তিনি লিখেছেন, “একদল লোক একটা ছাগলকে গণধর্ষণ করেছে। অনেকেই এই বিষয়টি নিয়ে বিতৃষ্ণা প্রকাশ করেছেন। অভিযুক্তেরা বিশ্বাস করে যে একজন মহিলাকে ধর্ষণ করার থেকে ছাগলকে ধর্ষণ করা সহজ। কিন্তু সহজ সত্যিটা হচ্ছে ধর্ষণের জন্য মেয়ে আর ছাগলের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই। উভয়েই ধর্ষণের সময় বাধা দেয়।”