আশুলিয়ায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ বিক্ষোভ

আশুলিয়া ব্যুরো: রাজধানীতে বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনের সপ্তমদিনে শনিবার আশুলিয়ার বিভিন্ন স্থানে ঢাকা-আরিচা, নবীনগর-কালিয়াকৈর এবং বাইপাইল-আব্দুল্লাপুর মহাসড়কে বিক্ষোভ ও অবরোধ কর্মসূচী পালন করেছে প্রায় ৩০-৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

দিনব্যাপী ঢাকা-আরিচা, নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক ও বাইপাইল-আব্দুল্লাপুর সড়কসহ শাখা সড়কগুলোতে ঘন্টার পর ঘন্টা হাজারো গাড়ী থেমে থাকতে দেখা যায়। সেই সাথে চরম দুর্ভোগ ও ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের।

শনিবার সকাল থেকে বিভন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষার্থীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নবীনগর, বিশমাইল, নয়ারহাট, বাইশমাইল, নবীনগর-কালিয়াকৈর মহাসড়কের পল্লীবিদ্যুৎ, বাইপাইল, ইপিজেড, চক্রবর্তী ও জিরানী এলাকায় নেমে আসে।

এলাকাবাসী সূত্র ও সরেজমিন ঘুরে দেখা ও জানা যায়, সকাল সাড়ে ১০টায় শিক্ষার্থীরা নবীনগর মহাসড়কের জিরানী বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান ডিগ্রী কলেজ, বিকেএসপি পাবলিক স্কুল, কফিল উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ, আফাজ উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ, হাজী আব্দুল মজিদ মেমোরিয়াল স্কুল, সুরুজ্জামান আদর্শ বিদ্যানিকেতনসহ গণ বিশ্ববিদ্যালয় ও সিটি ইউনিভার্সিটির কিছু শিক্ষার্থী বিক্ষোভ ও অবরোধে অংশ নেয়।

পরে তারা মহাসড়কে চলাচলরত বিভিন্ন যানবহন থামিয়ে কাগজপত্র চেক করেন এবং পরে নিরাপদ সড়কের দাবী জানিয়ে মানব বন্ধন করে। নবীনগর-কালিয়াকৈর মহাসড়কের চক্রবর্তী এলাকায় একই দাবী জানিয়ে বিভিন্ন স্কুৃল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও অবরোধসহ যানবাহনের কাগজপত্র ও চালকের লাইসেন্স চেক করে।
এদিকে, বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর সড়কের বাইপাইল বাসস্ট্যান্ডে দি টাঙ্গাইল রেসিডেনসিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, সৃষ্টি শিক্ষা পরিবার, গুমাইল উচ্চ বিদ্যালয়, গাজীরচট উচ্চ বিদ্যালয়, রাজধানীর তেজগাঁও কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সকাল থেকেই জড়ো হতে থাকে।

পরে তারা সেখানে নিরাপদ সড়কের দাবী জানিয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে এবং বিভিন্ন যানবাহন থামিয়ে গাড়ীর কাগজপত্র ও ড্রাইভারের লাইসেন্স চেক করে।