ধামরাইয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৪, আহত ২০

ধামরাই প্রতিনিধি : ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের কেলিয়ায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৪জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টারদিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে নিহতদের কারও পরিচয় পাওয়া যায়নি।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গাগামী সূর্য্যমুখী পরিবহণের যাত্রীবাহী বাসের (পাবনা-ব-১১-০০১২) সঙ্গে ধামরাইয়ের ঢুলিভিটাগামী সেতু পরিবহণের একটি পোশাক শ্রমিকবহনকারী বাসের (ময়মনসিংহ-ব-০৫-০০০৪) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় দুটি বাসের সামনের অংশ চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন পুরুষ যাত্রী নিহত হন এবং হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও একজন মারা যায়। এসময় আহত হয় আরও ২০ জন।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর সাহেব আলী জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিটের কর্মীরা আহতদের মধ্যে মনিরা খাতুন, আব্দুর রফিক, করিম, মামুন, তপনসহ ১২ জনকে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার পরই ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ইউনুস আলী, বায়েজীদসহ অনেকে জানান, সেতু পরিবহণের বাসের চালক ও হেলপার ছিল ১৩-১৪ বছরের অপ্রাপ্তবয়স্ক এবং ওই বাসটির মালিক ধামরাইয়ের চন্দ্রাইল এলাকার নয়ন মিয়া।

এদিকে আহতদের প্রথমে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রো নেয়া হলে সেখানে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক না থাকায় স্থানীয় জনতা বিক্ষোভ করেন।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. নাজনীন আক্তার জানান, ছুটিরদিন হওয়ায় চিকিৎসক ও নার্সের সংকট রয়েছে। এরপরও ১১ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চারটি অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার এসআই জুলফিকার হায়দার জানান, ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হয়েছে। তাদের পরিচয় উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।