ঈদ উপলক্ষে লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

ঈদুল আজহায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দক্ষিণাঞ্চলে ফিরবেন লাখ লাখ মানুষ। এসব অঞ্চলের মানুষের কাছে অন্যতম যোগাযোগ ব্যবস্থা নদীপথ। তাই কোরবানি ঈদে বরিশাল-ঢাকা নৌরুটে নিয়মিতর পাশাপাশি বিশেষ সার্ভিসের ব্যবস্থা করে থাকেন লঞ্চ মালিকপক্ষ। এবারেও তার ব্যতিক্রম ঘটছে না। ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে ঈদে ঘরমুখো মানুষের জন্য লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি।

বরিশাল-ঢাকা নৌরুটের বিলাসবহুল যাত্রীবাহী লঞ্চগুলোর মধ্যে এমভি কীর্তনখোলা-১০ ও কীর্তনখোলা-২ লঞ্চ কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার থেকে টিকিট বিক্রি শুরু করেছে। সরাসরি আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে এ টিকিট বিক্রি কার্যক্রম চলবে আগামী ১৭ আগস্ট পর্যন্ত।

পাশাপাশি বরিশাল-ঢাকা নৌপথের লঞ্চের কেবিন বুকিংয়ের জন্য স্লিপ জমা নেয়া শুরু হয়েছে। সকাল থেকে বরিশালে কয়েকটি লঞ্চের কাউন্টারে কেবিন বুকিংয়ের জন্য যাত্রীদের কাছ থেকে স্লিপ জমা নেয়া হয়। আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত কেবিন বুকিংয়ের জন্য যাত্রীরা স্লিপ জমা দিতে পারবেন। পরে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ স্লিপ যাছাই-বাছাই করে ৭ আগস্ট থেকে কেবিনের টিকিট বিক্রি শুরু করবেন।

জানা গেছে, প্রতিবছর লঞ্চমালিকরা অগ্রিম টিকিট দেয়ার নামে স্লিপ জমা নেয়। কিন্তু স্লিপ সংগ্রহকারী সবাই কেবিনের টিকিট নিতে পারে না। বেশির ভাগ স্লিপ সংগ্রহকারী সিন্ডিকেট চক্র। তারা লঞ্চমালিকদের সঙ্গে যোগসাজশে টিকিট নিয়ে বেশি দামে বিক্রি করে। পরিচিত মুখ, প্রশাসন, সরকারি কর্মকর্তা ও সংসদ সদস্য ছাড়া খুব কম লোকের কপালেই অগ্রিম টিকিট জোটে।

barisal

বৃহস্পতিবার বরিশাল-ঢাকা নৌপথের বিলাসবহুল যাত্রীবাহী লঞ্চগুলোর মধ্যে এমভি কীর্তনখোলা ও সুরভীসহ কয়েকটি লঞ্চের কেবিন বুকিংয়ের জন্য যাত্রীদের কাছ থেকে স্লিপ জমা নেয়া শুরু হয়।

কীর্তনখোলা লঞ্চের সহকরী ব্যবস্থাপক (এজিএম) মো. রিয়াজুল করিম বলেন, আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে এ স্লিপ জমা নেয়া হচ্ছে। ৫ আগস্ট পর্যন্ত কেবিন বুকিংয়ের জন্য যাত্রীরা স্লিপ জমা দিতে পারবেন। ৭ আগস্ট থেকে কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।

সুরভী লঞ্চের বরিশালের কেবিন বুকিং ইনচার্জ মো. নাইম বলেন, শুধু যাত্রীদের থেকে বুকিং স্লিপ নেয়া হচ্ছে। কোনোভাবেই দালালরা যেন কেবিন না পায় সে দিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।

বরিশাল-ঢাকা নৌপথের বিলাসবহুল লঞ্চ সুন্দরবনের বরিশাল কাউন্টার ব্যবস্থাপক মো. জাকির হোসেন জানান, তারা এখনও স্লিপ জমা নেয়া শুরু করেননি। লঞ্চ কর্তৃপক্ষ আলোচনা করে দু’একদিনের মধ্যে কেবিন বুকিংয়ের স্লিপ জমা নেয়া শুরু করবেন।