সাব্বিরের কু-কর্ম, শুনলে চোখ কপালে উঠবে ভক্তদের

ফুলকি ডেস্ক: বাংলাদেশের আবুল হাসান রাজু, টেস্টে অনিয়মিত কিন্তু একটা সেঞ্চুরি আছে তার। সোহাগ গাজী, তারও আছে একটি সেঞ্চুরি। কিন্তু প্রতিনিয়ত সুযোগ পেয়েও কোন সেঞ্চুরি নেই বাংলাদেশের ‘সো কলড’ টি-টুয়েন্টি স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানের নেই কোন সেঞ্চুরি।

টানা ব্যর্থতা পাশ কাটিয়ে জন্ম দিয়েছেন একের পর এক বিতর্কের। রেকর্ডের খাতা না ভরাতে পারলেও রেকর্ড জরিমানা দিয়ে ভরিয়েছেন বিসিরি’র একাউন্ট।

টি-টুয়েন্টি আর ওয়ানডে মিলিয়ে শেষ সাত ম্যাচে ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করেছেন তিনি। সাব্বির হার্ট হিটার ব্যাটসম্যান। কিন্তু পরিসংখ্যান দেখলে হাসি পায় ভক্তদের।

এ পর্যন্ত ১১ টেস্ট খেলে করেছেন ৪৮১ রান। গড়ও চোখে তোলার মত, ২৪.০৫। নেই কোন সেঞ্চুরি। ওয়ানডেতে ২৪ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন তিনি, গড় ২৪.৫১। সেঞ্চুরির বালাই নাই। টি-টুয়েন্টিতেও নেই বলার মত কোন পরিসংখ্যান। তবে কি চার বছর আগে সম্ভবনাময়ী এক ব্যাটস ম্যানের মাথায় ক্যাপ তুলে দিয়ে ভুল করেছেন মাশিরাফি? সাব্বিরের বন্ধুত্ব বিতর্কে সাথে। খেলার চেয়ে বাহিরেই মনোযোগ বেশি। রেকর্ড গড়ছেন, রেকর্ড তুলছেন। কিন্তু তা সাফল্যের নয়, বিতর্কের। খেলার মাঠে সাব্বিরের এই ব্যর্থতার কারন খুজেছেন ভক্তরা।

কেন এই ভরাডুবি? সাব্বিরের গাড়িচলকের চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য শুনলে কিছুটা আচ করা যায়।

পাঠকদের সুবিধার্থে সাব্বিরের গাড়ি চালকের বক্তব্য হুবহু তুলে ধরা হলো:

‘ওর একটা এ্যাড দেখছিলাম, ওই এ্যাডটায় লায়লা নাইম ছিল বোধহয়, ওকে আমি আগে চিনতাম না। ও আসত। যখন আমি টিভিতে এ্যাড দেখলাম; তখন মনে হলো, এই আপুটারে তো আমি চিনি। এ এখানে কেন? এরে তো আমি চিনি। এ তো আগের থেকেই আসত। টাকা দেয়া ছিল দারোয়ানকে। আসলেই ওর মনে করেন উপরে পাঠায়ে দিত।

লাস্ট যে কাহিনি, মেয়েটা আসল, আসার পর মনে করেন সে যাবে না। সে বলল যে, আমি যাব না। তুমি আমার ফোন ধরো না। তুমি আরেকজনকে নিয়ে ঘোরো। আমি যাব না।

না যাওয়ার পর আমাকে বলল, তুমি ওরে জোর করে বের করে দাও। বের করে দিয়ে গেট লাগায়ে দাও।

কিন্তু আমি সেটা পারিনি। পরে সেই জোর করে বের করে দিয়েছে। পরে আমাকে টুট..টুট (এমন অশ্লীল কথা যেটা লেখার যোগ্য না) বলে গালাগাল দিয়েছে। আমি বললাম আপনি আমাকে গালাগালি দিতিছেন ক্যান? আপনি রাত তিনটার সময় ই-করবেন। আর আমাকে বের করে দিতি কবেন। আমি এসব পারব না। আপনি দিয়ে আসেন। পরে এটা নিয়ে আমার সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পরযায়ে সে আমাকে পায়ের স্যান্ডেল দিয়ে মারে। পরে তার সাথে আমার হাতাহাতিও হয়।’