শিক্ষার্থীদের সব দাবি সরকার মেনে নিয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘শিক্ষাথীদের সব দাবি যৌক্তিক। সরকার তাদের দাবিগুলো মেনে নিয়েছে। পর্যায়ক্রমে এই দাবিগুলো বাস্তবায়নের কাজ চলছে।’ তিনি জনদুর্ভোগের বিষয়টি মাথায় নিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের রাস্তা ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানান।

বুধবার (১ আগস্ট) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মিনি কনফারেন্স রুমে এক বৈঠক শেষে সাংবাদিদের ব্রিফ করার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, আইজিপি জাভেদ পাটোয়ারি, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, বাস মালিক সমিতির নেতা এনায়েতউল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

মিটিং শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ছাত্রদের সব দাবি সরকার মেনে নিয়েছে। ঘাতক গাড়ি জাবালে নূরের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হয়েছে। বাসের ড্রাইভার-হেলপারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘাতকদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।’

তিনি জানান, ‘স্টার্টিং পয়েন্টে গাড়ির ফিটনেট, রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট ও চালকের লাইসেন্স পরীক্ষা করে প্রতিদিন রাস্তায় গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ থেকেই এটা শুরু হয়েছে। এসব পরীক্ষার সময় বিআরটিকে সহযোগিতা করবে মালিক ও শ্রমিকরা। পুলিশ বিষয়টি তদারকি করবে।’

মন্ত্রী আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতি বলেন, ‘জনগণের দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে এই অবরোধ তুলে নিয়ে ঘরে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। এ বিষয়ে সরকার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও অভিভাবকদের সহযোগিতা চায়। আপনারা আপনাদের সন্তানদের, শিক্ষার্থীদের ঘরে-ক্লাসে ফিরিয়ে নিন। সরকার সব দাবি মেনে নিয়েছে, এগুলো পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘একটি স্বার্থান্বেষী মহল এই সময়ে গাড়ি ভাঙচুর ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে।’

নৌমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, ‘সরকারের আজকের বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।’