দেখে নিন, মাঠে নিজের অভিনয়ের স্বপক্ষে কি যুক্তি দাড় করালেন নেইমার?

ফুলকি ডেস্ক: মাঠ ও মাঠের বাইরে বরাবরই আলোচিত নেইমার। রাশিয়া বিশ্বকাপেও ব্যতিক্রম হয়নি। শুরু থেকেই মাঠের পারফরম্যান্স ছাপিয়ে আলোচনার শীর্ষে ছিলেন ‘অভিনেতা’ নেইমার। ব্রাজিলের এই তারকা ফরোয়ার্ড মাঠে পড়ে গেলেই সন্দেহের দৃষ্টিতে তাকাতেন দর্শকরা। সবার প্রশ্ন ছিল, আসলে এটা কি ফাউল, নাকি তিনি অভিনয় করছেন? প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন নেইমার।

স্পন্সর জিলেটের একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে নিজের ভুল স্বীকার করে নিয়েছেন নেইমার। জানিয়েছেন, মাঝেমধ্যে কোনো কোনো ফাউলের সময় প্রয়োজনের চেয়ে বেশি প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে শুদ্ধ খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে ফেরার অঙ্গীকার করেছেন ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) এই ব্রাজিলিয়ান তারকা।

প্রয়োজনের চেয়ে বেশি প্রতিক্রিয়া দেখানো নিয়ে নেইমার বলেন, ‘আপনারা হয়তো ভাবতে পারেন মাঠে আমি অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছি। মাঝেমধ্যে আমি সেটা করেছি, অতিরঞ্জিত প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছি। কিন্তু সত্যটা হচ্ছে মাঠে আমাকে আঘাত পেতে হয়েছে, ভুগতে হয়েছে। এ ছাড়া এটা থেকে বাঁচার কোনো উপায় আমার জানা ছিল না।’

হেক্সা জয়ের স্বপ্ন নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিল ব্রাজিল। সেলেসাওদের সেই হেক্সা জয়ের স্বপ্নদ্রষ্টা বলা হচ্ছিল নেইমারকে। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালেই ভঙ্গ হয় ব্রাজিলিয়ানদের সেই স্বপ্ন। বেলজিয়ামের কাছে হেরে ছিটকে যায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাদ পড়ার পর গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি নেইমার।

গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা না বলার কারণ জানাতে গিয়ে ব্রাজিলিয়ান এই সুপারস্টার বলেন, ‘আমি সাক্ষাৎকার না দিয়ে চলে যাওয়ার কারণ এটা নয় যে আমি শুধু জয় দেখতে চেয়েছি। কারণটা হচ্ছে, আমি আপনাদের হতাশ করতে শিখিনি। যখন আমাকে অভদ্র মনে হয়, তার কারণ এটা নয় যে আমি একজন নষ্ট ছেলে। কারণ হলো, আমি জানি না কীভাবে হতাশার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয়। আমার মধ্যে একটি ছোট্ট বালক বাস করে। মাঝেমধ্যে সে পুরো পৃথিবীকে আনন্দ দেয়, মাঝেমধ্যে বিরক্ত করে। আমি সেই বালকটিকে আমার ভেতর বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করি।’

রাশিয়া বিশ্বকাপ চলাকালীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতেও নেইমারকে নিয়ে চলেছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। এসবের মধ্যে অভিনয়ের মাধ্যমে নেইমারকে ব্যঙ্গ করে বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ। ভবিষ্যতে এসব ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখতে চান না তিনি। এ জন্য নিজেকে একজন নতুন মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেছেন নেইমার।

সমালোচনা মেনে নিয়ে নেইমার বলেন, ‘আপনাদের মনে হতে পারে, আমি খুব বেশি পড়ে যাচ্ছি। তবে বাস্তবতা হলো, আমি ভেঙে খানখান হয়েছি। এটা অপারেশন হওয়া অ্যাঙ্কেল মাড়িয়ে দেওয়ার চেয়েও বেশি কষ্টকর। আমি আপনাদের সমালোচনা মেনে নিতে সময় নিয়েছি। সময় নিয়েছি নিজেকে আয়নায় দেখতে ও নতুন একজন মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে। তারাই উঠতে পারে, যারা পড়ে যায়। যখন আমি উঠে দাঁড়াই, পুরো দেশ আমার সঙ্গে উঠে দাঁড়ায়।’