বিপিএলে ‘ডিআরএস’ সিস্টেম, সর্বোচ্চ ৮ বিদেশি ক্রিকেটার

সামনে একটা সূচি বা দিন তারিখ ছাড়া আগানো সম্ভব না। প্রস্তুতির নানা কাজকর্ম সূচারূরুপে সম্পন্ন করতে তাই ‘৫ জানুয়ারী-৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯’-শুরুর সম্ভাব্য দিনক্ষণ ঠিক করা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা থেকে রাত অবধি বৈঠক করে এ দিন তারিখ চূড়ান্ত করা হয়েছে।

তবে যতই দিন তারিখ চূড়ান্ত করা হোক না কেন, আসল সত্য হলো-এবারের বিপিএল শুরু আসলে নির্ভর করছে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ওপর। ধারণা করা হচ্ছে, চলতি বছর ডিসেম্বর মাসের তৃতীয় সপ্তাহে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। কাল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের অনানুষ্ঠানিক সভা শেষে বলাই হয়েছে, জাতীয় সংসদ নির্বাচন ডিসেম্বরে হবে ধরে ও ভেবেই বিপিএল জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে আয়োজনের চিন্তা করা হয়েছে। কোন কারণে সংসদ নির্বাচন পিছিয়ে গেলে বিপিএলও পিছিয়ে যাবে।

এদিকে, গতকাল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল ও ফ্র্যাঞ্চাইজিদের অনানুষ্ঠানিক যৌথ সভায় যে শুধুই টুর্নামেন্টের দিন-তারিখ নিয়ে কথা হয়েছে এবং শুধু যে সূচিই চূড়ান্ত হয়েছে, তা নয়। ভেতরের খবর, রোববারের যৌথ সভায় আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

জানা গেছে, কালকের বৈঠকে বিদেশি ক্রিকেটার নিয়ে বেশ খোলামেলা কথা বার্তা হয়েছে। এবং খালি চোখে মনে হচ্ছে বিদেশি ক্রিকেটারের অবাধ প্রবাহ কমে আসছে বিপিএলে। বলার অপেক্ষা রাখে না, গতবার এক ম্যাচে সর্বাধিক পাঁচজন বিদেশি ক্রিকেটার খেলানো গেছে। এবার তা কমিয়ে আবার চারে নিয়ে আসা হবে। অর্থাৎ কোন দল এক খেলায় চার জনের বেশি বিদেশি ক্রিকেটার খেলাতে পারবে না।

এ সিদ্ধান্ত অবশ্য আগেই নেয়া। জানা গেছে, এর বাইরে রোববার বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল ও ফ্র্যাঞ্চাইজিদের যৌথ সভায় আরও দু তিনটি বিষয় আলোচিত হয়েছে। তার অন্যতম হচ্ছে, প্রতি দল নিলামের বাইরে তিনজন বিদেশি ক্রিকেটারকে সরাসরি খেলাতে পারবে। মানে তাদের কোনরকম প্লেয়ার্স ড্রাফট না করে নিজেদের মত করে দলে টানতে পারবে।

এছাড়া প্রতি দল আগের বছর খেলা ক্রিকেটারদের ভিতর থেকে সর্বোচ্চ চারজনকে রেখে দিতে পারবে। অর্থাৎ গতবার যারা খেলেছেন, দেশি ও বিদেশি মিলে তাদের মধ্য থেকে সর্বোচ্চ চারজনকে রেখে দেয়া যাবে। তবে সেটা দেশি এবং বিদেশি ক্রিকেটার মিলেই চারজন। অর্থাৎ প্রতি দল চাইলেই দুজন করে দেশি এবং সমান সংখ্যক বিদেশি ক্রিকেটার রেখে দিতে পারবেন। সেটা সেই দল ও দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারের পারষ্পরিক সমঝোতা এবং চুক্তির মধ্যে হতে হবে।

জানা গেছে, সেটা তিন জন দেশির সাথে একজন বিদেশির মিশেল হতে পারে। আবার তিন বিদেশির সঙ্গে একজন দেশি ক্রিকেটার মিলে চারজনও হতে পারে। তবে মোট কথা হলো, দেশি ও বিদেশির মিশেল থাকতে হবে।

এছাড়া আগে ইচ্ছেমত বিদেশি ক্রিকেটার দলে নেয়া যেত। যখন যিনি সময় দিতেন, তাকেই খেলানো যেত। এবার সে নিয়মের ব্যত্যয় ঘটতে যাচ্ছে। এবার কোনভাবেই আট জনের বেশি বিদেশি ক্রিকেটার দলে নেয়া যাবে না। আর স্থানীয় ক্রিকেটারের সংখ্যাও বেঁধে দেয়া থাকবে। সেই সংখ্যা হবে ১২ জনের। অর্থাৎ কোন দল ১২ জন স্থানীয় ক্রিকেটার এবং আট জনের বেশি বিদেশি ক্রিকেটার দলে ভেড়াতে পারবে না।

এছাড়া এবারের বিপিএলে ‘ডিআরএস’ সিস্টেম থাকার বিষয়টিও খুব করে আলোচিত হয়েছে। জানা গেছে, মাঠে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে যাতে হৈ চৈ না হয় এবং জটিলতা দেখা না দেয়, তাই এবার ‘ডিআরএস’ সিস্টেম রাখার সিদ্ধান্তও একরকম চূড়ান্ত।

এছাড়া প্রতি ম্যাচে একজন করে বিদেশি আম্পায়ার রাখার কথাও আলোচিত হয়েছে। সেটাও সিদ্ধান্ত আকারে আসতে যাচ্ছে। ফলে এবার আর আগের মত প্রতি ম্যাচে দুই প্রান্তে বাংলাদেশের আম্পায়ার দেখা যাবেনা। তাদের সাথে একজন করে বিদেশি আম্পায়ারও থাকবেন।