ধামরাইয়ে ঘুমন্ত মাকে গলা কেটে হত্যা

ধামরাই প্রতিনিধি: ধামরাইয়ে ঘুমন্ত মাকে গলা কেটে হত্যা করেছে পাষন্ড ছেলে। এ ঘটনায় তার বাবা ও বড় ভাই গুরুতর আহত হয়েছে। সোমবার ভোর রাতে ধামরাইর রোয়াইল ইউনিয়নের খড়ারচড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে রতন মিয়া বাদি হয়ে ধামরাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, প্রতিদিনের ন্যায় রোববার রাতে খাবার খেয়ে একই ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে বাবা, মা ও ছেলে রায়হান উদ্দিন (২০)। সোমবার ভোর রাতে মানসিক ভারসাম্যহীন রায়হান আকস্মিকভাবে তার মা জামিলা বেগমকে (৬০) ধারালো দা দিয়ে জবাই করে এবং বাবা বাছের উদ্দিনকে (৬৮) কুপিয়ে জখম করে। তাদের ডাক চিৎকারে ভাই রতন এগিয়ে গেলে তাকেও আঘাত করে। এসময় প্রতিবেশীরা গিয়ে মুমূর্ষুাবস্থায় বাছেরকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

নিহত জামিলা খাতুনের প্রতিবেশী আবদুস সোবাহান জানান, রায়হান বেশ কিছু দিন থেকে মানসিক রোগী হিসেবে এলাকায় পরিচিত। একসময় সে নেশায় আসক্ত ছিল। তার বন্ধু বান্ধব নেশাখোর। নিহত ওই নারীর মৃত্যুতে ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

রায়হানের মামা মোকলেছুর রহমান জানান, তার ভাগ্নে কয়েক বছর ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। তাকে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ধামরাই থানার এস আই আবুল কালাম জানান, মানসিক ভারসাম্যহীন রায়হানকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।