সড়কে দুই শিক্ষার্থীর লাশ, হাসিমুখে মন্ত্রীর জবাব

রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকায় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থীর নিহত হওয়ার ঘটনায় যখন ক্ষোভে ফেটে পড়ছেন সাধারণ মানুষ, সে সময় মন্ত্রীর মুখে দেখা গেল হাসি। শুধু তাই নয়, অনেকটা স্বাভাবিক বাচনভঙ্গিতেই ঘটনা নিয়ে সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের জবাব দেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। হাসতে হাসতে জানান দোষীদের শাস্তির কথা। আর সরকারের দায়িত্বশীল একজন মন্ত্রীর এমন আচরণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। শোকাহত সাধারণ মানুষ মন্ত্রীর এহেন নির্বিকার ভূমিকার সমালোচনা করছেন। প্রশ্ন তুলেছেন, অট্টহাসি দিয়ে যখন মন্ত্রী বলছেন- দোষীদের শাস্তির কথা, সে ক্ষেত্রে কতটা শাস্তি পাবেন দোষীরা?

২৯ জুলাই, রবিবার সচিবালয়ে মংলা বন্দরের জন্য মোবাইল হারবার ক্রেন ক্রয়-সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মন্ত্রী।

এদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হোটেল রেডিসনের উল্টো দিকের সড়কে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকায় সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের চাপা দিয়েছে ‘জাবালে নূর’ পরিবহনের একটি বাস। এতে ছাত্রীসহ দুজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ১২ জন। নিহত দুই শিক্ষার্থী হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম।

সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়টি নজরে এনে এক সাংবাদিক মন্ত্রীকে বলেন, আপনার (নৌমন্ত্রী) প্রশ্রয়ে দিন দিন চালকরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। জবাবে হাসিমুখে মন্ত্রী বলেন, ‘এ প্রোগ্রামের সঙ্গে কি এটা রিলেটেড? আমি শুধু এটুকু বলতে চাই, যে যতটুকু অপরাধ করবে, সে সেভাবেই শাস্তি পাবে।’

ভারতের একটি সড়ক দুর্ঘটনার উদাহারণ টেনে অনেকটা অট্টহাসিতে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা লক্ষ্য করেছেন, ভারতের মহারাষ্ট্রে গাড়ি দুর্ঘটনায় ৩৩ জন মারা গেছেন। এখন সেখানে কী…আমরা যেভাবে এগুলোকে নিয়ে কথা বলি, এগুলো কি ওখানে বলে। আমি মনে করি, এ বিষয়ে যদি আপনারা আলোচনা করতে চান, এটা নিয়ে পরে আলোচনা হবে।’

বাসচাপায় নিহত দিয়া খানম মিম (বাঁয়ে) ও আব্দুল করিম (ডানে)
বাসচাপায় নিহত দিয়া খানম মিম (বাঁয়ে) ও আব্দুল করিম (ডানে)

ভারতের একটি সড়ক দুর্ঘটনার উদাহারণ টেনে অনেকটা অট্টহাসিতে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা লক্ষ্য করেছেন, ভারতের মহারাষ্ট্রে গাড়ি দুর্ঘটনায় ৩৩ জন মারা গেছেন। এখন সেখানে কী…আমরা যেভাবে এগুলোকে নিয়ে কথা বলি, এগুলো কি ওখানে বলে। আমি মনে করি, এ বিষয়ে যদি আপনারা আলোচনা করতে চান, এটা নিয়ে পরে আলোচনা হবে।’

নৌমন্ত্রীর সমালোচনা করে উশিন ফাতিমা নামের একজন মানবাধিকার কর্মী ফেসবুকে লিখেন, ‘আমাদের পরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান আজ বাসচাপায় তিন জন শিক্ষার্থীর মৃত্যু প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ভাবলেশহীন, নির্বিকারভাবে হাসছে!’

মো. স্বাধীন মাহাবুব নামের একজন ফেসবুকে মন্তব্য করেন, ‘মন্ত্রী মহোদয় এর আগে বলেছে, শুনেছি ড্রাইভারদের দোষ নেই, দোষ হচ্ছে সাধারণ মানুষদের ও যাত্রীদের, আসলে বাংলাদেশে কোনো আইনশৃঙ্খলা নেই বিধায় এমন অবস্থা। বাংলাদেশে নিয়মশৃঙ্খলা আছে শুধু নিজেদের বাঁচার জন্য। শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে একটা গাড়ি চলাচল করলে সাথে সাথে বড় আকারের দণ্ডাদেশ এবং বড় রকমের জরিমানা করা দরকার।’