রাজশাহী সিলেট বরিশালে ভোটের আগে নেমেছে বিজিবি

ফুলকি ডেস্ক : ভোটের দুদিন আগে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশন এলাকায় নেমেছেন বিজিবি সদস্যরা।

বিএনপি এই তিন নগরে সেনা মোতায়েনের দাবি জানালেও স্থানীয় সরকারের এই নির্বাচনে পুলিশ, আনসারের সঙ্গে বিজিবিকেই যথেষ্ট মনে করছে নির্বাচন কমিশন। ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভোট ঘিরে তিন মহানগরে নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবেন বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার-ভিডিপির প্রায় ১৫ হাজার সদস্য।

ভোটের প্রচার শেষ হওয়ার ১৭ ঘণ্টা আগে শনিবার সকাল ৭টা থেকে রাজশাহী নগরে ১৫ প্লাটুন বিজিবি নেমেছে বলে জানিয়েছেন বিজিবি-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শামীম মাসুদ আল ইফতেখার।

তিনি জানান, “মোট ১৯ প্লাটুন বিজিবি সদস্য ভোটের জন্য রাজশাহী নগরীতে থাকবে। ১৫ প্লাটুন থাকবে টহলে। বাকি ৪ প্লাটুন রিজার্ভ ফোর্স হিসাবে রাখা হবে।” রাজশাহীতে ১৪০০ পুলিশ, ১৯৩২ আনসার ও ৪৫০জন র‌্যাব সদস্যের সমন্বয়ে নিরাপত্তা পরিকল্পনা করেছে ইসি।

বরিশাল নগরীতেও সকাল থেকে টহলে দেখা গেছে বিজিবি সদস্যদের। সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় ১৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবি সিলেট সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, নগরীর ২৭ টি ওয়ার্ডে এখন ১৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। আরও চার প্লাটুন বিজিবি প্রস্তুত রয়েছে। তারা নির্বাচনের দিন স্ট্রাইকিং ফোর্স ও মোবাইল টিম হিসেবে কাজ করবে।

সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটনিং কর্মকর্তা মো. আলিমুজ্জামান জানান, নির্বাচনে ১৪ প্লাটুন বিজিবির সঙ্গে র‌্যাবের ২৭টি টিম কাজ করবে। ১৩৪টি ভোট কেন্দ্রের প্রতিটিতে ২২ জন করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া জানান, নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ১৩৪টি ভোট কেন্দ্রে দুই হাজার ৯৪৮ জন পুলিশ ও আনসার সদস্য নিয়োজিত থাকবে।