পকিস্তানের ক্রিকেটারদের দৃষ্টিতে ‘নতুন’ ইমরান খান

দ: ক্রিকেটের স্টেডিয়াম থেকে রাজপথের লড়াইয়ে। সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে। ইমরান খানের জীবনের বর্ণিল চিত্রনাট্যে আরও কত চমক যে লুকিয়ে আছে, কে জানে।

নাকি এটাই শেষ চমক! পাকিস্তানের খ্যাতনামা ক্রিকেট লিখিয়ে কামার আহমেদের বর্ণনায়, ইমরান সবসময় শিরোনামে থাকতে চান। পার্শ্বচরিত্র হয়ে থাকাটা একদমই পছন্দ নয় তার।

বিতর্ক যার ছায়াসঙ্গী, স্ক্যান্ডালে জর্জরিত যার জীবন, সেই তিনি এখন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। যার হাত ধরে ’৯২ বিশ্বকাপ জিতেছিল পাকিস্তান, তিনি এখন দেশের কর্ণধার। প্লেবয় ক্রিকেটার থেকে প্রধানমন্ত্রী। কীভাবে ‘নতুন’ ইমরান খানকে দেখছেন পাক-ভারতের সাবেক ক্রিকেটাররা?

ইমরান খানের ওপর ভরসা রাখছেন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর ইমরান খানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সরফরাজ। শুধু সরফরাজই নন, আরও অনেকে ইমরানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

জহির আব্বাস বলেছেন, ‘জয়ের জন্য ইমরানকে ধন্যবাদ জানাই। বিশ্ব ক্রিকেটে তিনি আমাদের গর্বিত করেছেন। এবার রাজনৈতিক নেতা হিসেবেও সেটা করলেন।’ ইমরানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন পাকিস্তানের হকি লিজেন্ড সামিউল্লাহ খান, অলিম্পিকজয়ী হানিফ খান এবং আরও অনেকে।

এদিকে সাবেক ভারত অধিনায়ক কপিল দেব বলেছেন, ‘এটা একটা দারুণ ব্যাপার। বিশ্বকাপ জেতার সময় ইমরান যেরকম আবেগপ্রবণ ছিল, এখনও সেরকমই আছে। আশা করব, এই সাফল্য ওর দেশের উপকারে লাগবে।’ তিনি বলেন, ‘প্রথমে মাঠে দেশের প্রতিনিধিত্ব করা। তারপর দেশের সর্বময় নেতা হয়ে ওঠা- এটা একটা দারুণ ব্যাপার।’

কপিল বলেছেন, ‘ইমরান যেহেতু ক্রিকেটার ছিল, তাই মনে হয় ও পরিস্থিতির উন্নতির ওপরই জোর দেবে। ক্রিকেট মহলও এ ব্যাপারে একমত। তবে আমার মনে হয়, তার আগে মাঠের বাইরের পরিস্থিতি উন্নত করার ওপর নজর দিতে হবে।’

রমিজ রাজা বলেন, ‘নেতা হিসেবে ইমরানের চেয়ে ভালো উদাহরণ আর কে হতে পারে? সুপারস্টার হিসেবে ওর তুলনা মেলা ভার। অথচ বাইশ বছর ধরে এই একটা লক্ষ্য এবং আদর্শের জন্য লড়াই করে গিয়েছে। ও সবসময় অন্যদের চেয়ে আলাদা।’

ইমরানকে অভিনন্দন জানিয়ে শহীদ আফ্রিদির টুইট, ‘এই ঐতিহাসিক জয়ের জন্য অভিনন্দন। ২২ বছরের লড়াই এতদিনে সফল হল। এই সাফল্যটা ওর প্রাপ্য। আশা করব, তুমি আমাদের সামনে থেকেই নেতৃত্ব দেবে।’