দরিদ্র দ.সুদানের এমপিদের জন্য ‘কার লোন’, তীব্র প্রতিক্রিয়া

 আফ্রিকার অন্যতম দরিদ্র দেশ দক্ষিণ সুদানের আইন-প্রণেতাদের গাড়ি কেনার জন্য ৪০ হাজার ডলার (প্রায় ৩ কোটি চার লাখ টাকা) করে ‘কার লোন’ প্রদানের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

দেশটির অর্ধেকেরও বেশি লোক বিদেশি খাদ্য সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল। এই অবস্থায় দেশটির এমপিদের জন্য এমন বিলাসিতার খবরে সেখানে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দেশটির পার্লামেন্ট থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়।

দেশটির সংসদ সদস্যদের বেতন মাত্র ৯,০০০ সুদানি পাউন্ড (৫০ ডলার)।এমতবস্থায় তারা এই ধরনের বড় ঋণ কিভাবে পরিশোধ করতে সক্ষম হবেন তা স্পষ্ট নয়, যদিও এমপিরা তাদের বেতন বৃদ্ধি জন্য চাপ দিচ্ছেন।

পল কেনেয়ি নামে রাজধানী জুবা’র একজন মোটরসাইকেল ব্যবসায়ী বলেন, ‘রাস্তা নির্মাণের জন্য এই অর্থ ব্যবহার করা উচিত ছিল। একজন ব্যক্তিকে ৪০ হাজার ডলার প্রদান করা ভাল ধারণা বলে আমি মনে করি না। বর্তমানে সুদানি মুদ্রায় এটি একটি বিশাল অ্যামাউন্ট।’

একজন সংসদ সদস্য এবং পার্লামেন্টের একজন মুখপাত্র স্বাধীনভাবে এই প্রকল্পের বিষয়টি এএফপি’কে নিশ্চিত করেছে।

২০১১ সালে দক্ষিণ সুদান সুদানের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। স্বাধীনতা লাভের পর থেকেই ক্ষমতার দ্বন্দ্ব নিয়ে দেশটি গৃহযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে।

এই গৃহযুদ্ধের কারণে তেল-সমৃদ্ধ দেশটির অর্থনীতি ধ্বংসের পথে, কৃষি ব্যবস্থা মুখ থুবড়ে পড়েছে এবং সরকারি কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতনহীন অবস্থায় মানবতের জীবন-যাপন করছে।

জাতিসংঘ বলছে, চলতি বছরে সাত লাখ দক্ষিণ সুদানি জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশির জন্য খাদ্য সাহায্যের প্রয়োজন হবে।

যুবা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক উপ-অর্থমন্ত্রী ম্যারিয়াল আওয়ু বলেন, ‘তারা কীভাবে এই ঋণের অর্থ ফেরত দেবেন তা ভেবে অনেকেই অবাক হবেন।

তিনি বলেনম ‘এটি বেতন বৃদ্ধির জন্য একটি ধারাবাহিক দাবি উত্থাপন করবে যা এই মুহূর্তে দেশের পক্ষে সামর্থ নেই।’