পাকিস্তানে ভোটকেন্দ্রের কাছে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ২৫

পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচনের ভোট চলছে। এর মধ্যেই একটি ভোটকেন্দ্রের কাছে আত্মঘাতী হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ২৫ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজন পুলিশ সদস্য এবং দুই শিশু।

বুধবার কুয়েটার পূর্বাঞ্চলে একটি ভোট কেন্দ্রের কাছে ওই হামলা চালানো হয়। এতে আরও ৩০ জন আহত হয়েছেন। হামলার পর পরই সেখানে পৌঁছায় বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড। ঘটনাস্থল থেকে একটি অবিস্ফোরিত গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে।

উদ্ধারকারী সূত্র জানিয়েছে, ভোট কেন্দ্রের কাছে রুটিন মাফিক টহলে অংশ নেয়া একটি পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ওই হামলা চালানো হয়। পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, হামলায় আহতদের সানদেমান প্রদেশের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই হাসপাতালে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

পাকিস্তানে ১১তম জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্থানীয় সময় সকাল আটটায় ভোট শুরু হয়েছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন আগেও দেশজুড়ে ভয়াবহ সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনী প্রচারণার সময় হামলার ঘটনায় এক প্রার্থী নিহত হয়েছেন। নির্বাচনে ভোট কারচুপি এবং আরও সহিংসতার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ভোট দিতে সারাদেশে প্রায় ১০ কোটি ৬ লাখ ভোটার নিবন্ধন করেছেন। পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ এবং চারটি প্রদেশের বিধানসভার নির্বাচন হচ্ছে আজ। মানবাধিকার কমিশন বলছে, নির্বাচনে কারচুপির চেষ্টা করা হতে পারে।

এদিকে, নির্বাচনের ইতিহাসে এবারই সর্বোচ্চ সংখ্যক সেনা মোতায়েন করেছে পাকিস্তান। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ৩ লাখ ৭০ হাজারের বেশি সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। সন্ত্রাসী হামলায় জর্জরিত নির্বাচনী প্রচারণা শেষে সেনা মোতায়েনের এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামাবাদ। তবে কঠোর নিরাপত্তার মাঝেও ভোটকেন্দ্রের কাছে হামলার ঘটনা ভোট গ্রহণ ব্যহত করতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।