ছেলেকে হত্যার দায়ে মাসহ ৫ জনের যাবজ্জীবন

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা ; লক্ষ্মীপুরে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে ছেলে মুরাদুল ইসলাম সুমন হত্যা মামলায় মা হাসিনা, ভাই সোহেল ও আরো ৩ ভাড়াটিয়া খুনিসহ ৫ জনের যাবজ্জীবন করাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এছাড়াও প্রত্যেকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ১ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়। মঙ্গলবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ড. এ কে এম আবুল কাশেম এ রায় দেন। রায়ের সময় আদালতে অন্যরা পলাতক থাকলেও সাদ্দাম নামের এক আসামি উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, কমলনগর উপজেলার চর জাঙ্গালিয়া গ্রামের মৃত. মমিন উল্লাহর ছেলে মো. সাদ্দাম হোসেন (২৫), সদর উপজেলার সাহাপুর গ্রামের মো. দেলোয়ার হোসেনর ছেলে মো, সোহেল, মুরাদুল ইসলাম সুমনের মা হাসিনা বেগম, মৃত, আনোয়ার উল্যাহর ছেলে আবদুর রহিম ও ইসমাইল হোসেন প্রকাশ কালা ইসমাইল। মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি নিখোঁজ হন পৌরসভার সাহাপুর গ্রামের মো. দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মুরাদুল ইসলাম সুমন। দুই দিন পর ৮ ফেব্রুয়ারি পার্শ্ববর্তী বাঙ্গাখা ইউনিয়নের রাধাপুরের একটি ডোবায় থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় পরের দিন নিহতের মা হাসিনা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে সদর থানায় মামলা করেন। পরে তদন্ত করে আসামি সাদ্দামকে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে নিহতের মা ও ভাই হত্যার সঙ্গে জড়িত বলে প্রমাণ পায় পুলিশ।

পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত ওই আসামির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশের এসআই আবুল বাশার ২০১৪ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর আদালতে নিহতের মা ও ভাইসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। আদালত বাদী ও বিবাদী পক্ষের আইনজীবীদের দীর্ঘ শুনানিতে ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে এ রায় দেন। লক্ষ্মীপুর জজকোর্ট সরকারি কৌশলী (পিপি) অ্যাডভোকেট জসীম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।