ব্যর্থ হয়েছেন! জেনে নিন ব্যর্থতা কাটাতে কী করবেন?

ফুলকি ডেস্ক: আমরা সবাই জীবনের কোনও না কোনও পর্যায়ে ভুল করে থাকি। ভুলের মাশুল দিতে গিয়েই আমাদের দরজায় কড়া নাড়ে ব্যর্থতা। কিন্তু ব্যর্থতা মানেই কী সবকিছু শেষ হয়ে গেলো? না, আমরা চাইলে ব্যর্থতার বেড়াজাল ভেঙে এগিয়ে যেতে পারি সামনের দিকে।

জীবনের নানা পর্যায়ে ব্যর্থতা আসবেই। সেটা পরীক্ষার ফলাফল হোক আর চাকরি জীবনই হোক। ব্যর্থতার মুখোমুখি হোন না এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। চলুন ফাস্ট কোম্পানি, পজিটিভিটি ব্লগ ডট কম ও রিডার্স ডাইজেস্ট অবলম্বনে জেনে নিই ব্যর্থ হওয়ার পর আমাদের যা করতে হবে।

মেনে নিন আপনি ব্যর্থ

প্রথম ধাপটিই হলো আপনি যে ব্যর্থ এটা মেনে নেয়া। তারপর গা ঝাড়া দিয়ে উঠা ব্যর্থতার অনুভূতি থেকে। শারীরিকভাবে যদি আপনি ঠিক থাকেন তাহলে, মানসিক সকল বাধা অতিক্রম করার জন্য আপনার ইচ্ছাশক্তিই যথেষ্ট।

দুঃখ যাপন করুন

আপনি ব্যর্থ হয়েছেন সেটি মানুষকে বুঝতে দেবন না। নিজে ব্যর্থ হওয়ার পর যে কষ্টটা পেয়েছেন, সেটা লালন করুন। জেদ কাজ করবে একটা। সেই জেদ থেকেই ব্যর্থতার বেড়াজাল ভাঙতে পারবেন।

বিশ্লেষণ করুন

ব্যর্থ হওয়ার পর সেটার পোস্টমর্টেম করতে বসে যান। কেন হলেন ব্যর্থ, কী কী করা যেত- এই ব্যাপারগুলো একটা ডাইরিতে অথবা ফোনের মেমোতে লিখে ফেলুন।

কর্মপরিকল্পনা ঠিক করুন

এবার ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা ঠিক করে নিন। ব্যর্থতা থেকে শেখার চেষ্টা করুন এবং দ্বিগুণ শক্তিতে এগিয়ে যান সামনের দিকে।

ঠিক করুন ডেডলাইন

দুঃখযাপন হলো, ব্যর্থতার কারণ ও খুঁজে বের করলেন এবার পরবর্তী কর্মপরিকল্পনা ঠিক করে মাঠে নেমে পড়ুন। একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা ঠিক করুন। এই সময়ের মধ্যে টার্গেট নিয়ে আপনি আপনার লক্ষ্যের পথে পৌঁছান।

মানসিকভাবে শক্ত থাকুন

ব্যর্থ হওয়ার পর প্রথম প্রথম মানসিকভাবে ভেঙে পড়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বেশিদিন এরকম থাকা যাবে না। বুকে বাতাস চেপে বড় করে একটা শ্বাস ছাড়ুন। ঘুরে আসুন কোথাও থেকে, প্রিয় কোনও মানুষের সঙ্গে আড্ডা দিয়ে আসুন। মনটা চাঙা রাখার কোনও বিকল্প নেই।

ব্যায়ামের অভ্যাস করুন

হতাশা কাটানোর জন্য ব্যায়ামের কোনও বিকল্প নেই। তাই ব্যর্থ হওয়ার পর নিজের দৈনন্দিন অভ্যাসের মাঝে অন্তর্ভুক্ত রাখুন ব্যায়ামকে।

চাপ নিবেন না

মানসিকভাবে চাপের মুখে আছেন? না, একদমই চাপ নেবেন না। যা হারানোর তা হারিয়েছেন। এবার একদম ঠাণ্ডা মাথায় কীভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করবেন সেটা ঠিক করে নিন। আর মানসিক চাপ কমানোর জন্য করতে পারেন যোগব্যায়াম।

অনুপ্রাণিত করুন নিজেকে

এসময় পৃথিবীখ্যাত মনীষীদের জীবনী পড়ুন, ভালো কোনও সিনেমা দেখুন। যেভাবেই হোক নিজেকে অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করুন।