লকার ভাঙতেই বেড়িয়ে এলো ৫৫০ কোটি টাকার ‘গুপ্তধন’

ফুলকি ডেস্ক: ভারতের বেঙ্গালুরু শহরে ধনীদের ক্লাব বোরিং ইনস্টিটিউট। দেড়শ বছরের পুরনো ক্লাবটিতে ৬৯, ৭১ ও ৭৮ নম্বরের তিনটি লকারের প্রকৃত মালিককে খুঁজে পাচ্ছিলেন না ক্লাব কর্তৃপক্ষ। তাই প্রত্যেক সদস্যকে মোবাইলে মেসেজ পাঠানো, ই-মেইল করা, এমনকি ক্লাব চত্বরে নোটিস দেওয়া কোনো কিছু বাকি ছিল না। কিন্তু তবুও কেউ ওই লকারগুলোর মালিকানা দাবি করেননি। তাই এক প্রকার বাধ্য হয়ে লকার ভাঙার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

২০ জুলাই, শুক্রবার লকারগুলো ভাঙা শুরু হয়। কিন্তু লকার ভাঙতেই চক্ষুচড়ক গাছ! প্রতিটি লকার থেকেই বেরিয়ে আসতে শুরু করে কোটি টাকার সম্পত্তির দলিল, চার কোটি টাকার বিদেশি মুদ্রা, দুই কোটি ভারতীয় টাকা, হীরা ও সোনার গহনা চার কোটি টাকার। সব মিলিয়ে ৫৫০ কোটি টাকার সম্পত্তি!

পরে অবশ্য যোগাযোগ করেন লকারগুলোর প্রকৃত মালিক। তিনি শহরেরই রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী অবিনাশ অমরলাল কুকরেজা।

ক্লাব কর্তৃপক্ষ জানায়, অবিনাশ ক্লাবে তেমন একটা আসেন না। কিন্তু অবিনাশের মা ক্লাবের তাস খেলায় নিয়মিত যোগ দেন।

অবশ্য খবর পেয়ে এত সম্পত্তি কোথা থেকে এলো, এ বিষয়ে তদন্ত শুরু করার পাশাপাশি ৫৫০ কোটি টাকার ওই সম্পত্তি বাজেয়াপ্তও করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় আয়কর বিভাগ।