বুকে ব্যথা কি হৃদরোগের লক্ষণ? জেনে নিন

ফুলকি ডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরে মানুষের মনে একটা ধারণা জন্মেছে যে, বুকে ব্যথা হলেই হার্টের সমস্যা বা হার্ট অ্যাটাক এর লক্ষণ। আসলেই কি তাই? বুকে ব্যথা হৃদরোগের একটা লক্ষণ বটে কিন্তু বুকে ব্যথা হলেই হৃদরোগ ব্যাপারটা এমন না। 

আবার হৃদরোগে যে বুকে ব্যথা হবেই, এমনও কোনো কথা নেই। কোনো রকম বুকে ব্যথার ইতিহাস ছাড়াই বড় ধরনের হার্ট অ্যাটাক হয়ে গেছে বা হৃদ্যন্ত্রের রক্তনালিতে ব্লক পাওয়া গেছেএমন ঘটনা বিরল নয়।

কোন  সমস্যা ছাড়াও বুকে ব্যথা হতে পারে। খাদ্যনালির সমস্যা, পেপটিক আলসার, ফুসফুস ও পাঁজরের সমস্যায় এমনকি মানসিক উদ্বেগজনিত সমস্যায়ও বুকে ব্যথা হয়। সাধারণত হৃদ্যন্ত্রের সমস্যায় বা করোনারি ধমনিতে বাধার কারণে যে বুকে ব্যথা হয়ে থাকে, তার কিছু সুনির্দিষ্ট লক্ষণ থাকতে পারে। এটি সাধারণত বুকের একেবারে মাঝখানটিতে অনুভূত হয়।

এমন মনে হয় যে কেউ বুকটাকে চাপ দিয়ে ধরছে, ভার বোধ হচ্ছে বা মুচড়ে যাচ্ছে। ব্যথা ঘাড়, কাঁধ, চোয়াল, বাম হাত, এমনকি পিঠেও ছড়িয়ে যেতে পারে। হাঁটাচলা, সিঁড়ি ভাঙা, পরিশ্রম, দৌড়ঝাঁপ ইত্যাদিতে ব্যথা শুরু হয়ে যায়।

ঘুমের মধ্যে দুঃস্বপ্ন দেখেও অনেকের বুকে ব্যথা হতে পারে। করোনারি ধমিনতে বাধা বা ব্লকের কারণে হৃৎপিণ্ডে যথেষ্ট রক্ত বা অক্সিজেন সরবরাহ না হওয়াতে এই ব্যথা হয়। একে অ্যানজিনা বলা হয়। অ্যানজিনার ব্যথা বিশ্রাম নিলে বা জিবের নিচে নাইট্রোগ্লিসারিন স্প্রে নিলে সেরে যায়। তবে যখন এ ধরনের ব্যথা বিশ্রাম নিয়েও কমছে না, দীর্ঘক্ষণ স্থায়ী হচ্ছে, প্রচণ্ডতায় বাড়ছে, সঙ্গে ঘাম ও বমি ভাব হচ্ছে, তখন হার্ট অ্যাটাক হয়েছে বলে সন্দেহ করা যায়।

অল্পতে উদ্বিগ্ন না হয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। মনের ভয় দূর করে ফেলুন। ধূমপানের অভ্যাস থাকলে পরিহার করুন। বিশেষ করে আপনার বয়স যদি ৪০ এর উপরে হয়।