আলিয়া ভাটের দৃষ্টিতে নারীর যে ১০টি বিষয় গোপন রাখা উচিত

ফুলকি ডেস্ক: নারীর মন নাকি দেবতারাও বোঝেন না, তাহলে স্বামী পুরুষ বুঝবেন কীভাবে? সত্যি বলতে কী, মেয়েদের যতই দুর্নাম থাকুক বেশী কথা বলার জন্য, এমন কিছু কথা আছে যেগুলো মেয়েরা নিজের স্বামীকে কখনোই বলেন না। নিজের প্রেমিক পুরুষ, নিজের অতীত, নিজের মনের ভাব ইত্যাদি সম্পর্কে এমন কিছু কথা আছে যেগুলো মেয়েরা স্বামীর কাছে সবসময়েই গোপন করে যান।

সম্প্রতি বলিউডের নায়িকা আলিয়া ভাট জানিয়েছেন তার দৃষ্টিতে যে যে বিষয় প্রত্যেক নারীরই গোপন রাখা উচিত।

১. অধিকাংশ নারীই বিশ্বাস যেসব পুরুষ মজার নয়, যাদের ‘সেন্স অব হিউমার’ নেই, তারা গোমড়া।

২. দেহ থেকে ভালো গন্ধ না হওয়া মোটেই ভালো নয়। এটা প্রয়োজনীয়। একজন পুরুষের দেহের গন্ধ কেমন, তা একজন নারী প্রথমেই খেয়াল করেন।

৩. ডেটিং সব সময় ব্যয়বহুল হয় না। আপনারা একটা দারুণ সিনেমা দেখতে পারেন, একটা বার্গার খেতে পারেন কিংবা দূরে কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন। আমার ক্ষেত্রে একটা রোমান্টিক ডেটিং মানে আরামদায়ক পোশাকে নিজের মনের মানুষের সঙ্গে বসে থাকা, যাকে আমার নিজের মতো করে পাওয়া সম্ভব।

৪. কেমন দেখাচ্ছে, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি কতটা সুন্দর, তার চেয়ে আপনার পোশাক গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে ভালো পোশাকের দিকে মনোযোগ দিন।

৫. আপনার বিষয়ে বন্ধুদের মতামত খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্পাইস গার্লসের একটা গানে বলা হয়েছে, ‘তুমি যদি আমার প্রেমিক হতে চাও তাহলে আমার বন্ধুদের কাছে আসো।’

৬. আমরা যখন খুবই কর্মব্যস্ত তখন আমাদের ‘রিলাক্স’ করতে বললে তা কোনো কাজেই আসবে না। আপনাদের বিষয়টি জেনে রাখতে হবে।

৭. মনোযোগী হওয়া সব সময়েই তোষামোদি আচরণ, আপনি তা না চাইলেও। কিন্তু ভালোবাসার সঙ্গে মনোযোগী হলেও তার মানে এটা নয় যে, আমরা ‘না’ বললে তার মানে ‘হ্যাঁ’ হয়ে যাবে। ডেটিংয়ের আহ্বানে ‘না’ মানে ‘হ্যাঁ’ নয়।

৮. আমরা খুবই সচেতন। তাই সম্পর্কের ক্ষেত্রেও বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করতে হয়।

৯. আমরা বলতে পারি, কখন আপনারা অন্য নারীর দিকে তাকান। এ ক্ষেত্রে লুকোচুরির কোনো সুযোগ নেই। এমনকি সানগ্লাসে চোখ ঢাকলেও তা বোঝা যায়।

১০. কোথাও হারিয়ে গেলে পথের দিশা জিজ্ঞাসা করতে পার। কিন্তু তার মানে এটা নয় যে, আপনার সবকিছুই জেনে নিতে হবে।