আগামী নির্বাচনেও জোয়ারে ভাসবে আ.লীগ: ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে অভূতপূর্ব অগ্রগতির কারণে আগামী নির্বাচনেও জোয়ারে ভাসবে আওয়ামী লীগ।’ শুক্রবার (২০ জুলাই) সকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার গণসংবর্ধনা উপলক্ষে আয়োজিত চিত্রকর্ম প্রদর্শনীতে গিয়ে সাংবাদিকদের সামনে এ কথা বলেন তিনি। নির্বাচনকে সামনে রেখে গণসংবর্ধনা নির্বাচনি শো-ডাউন কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রাজনীতিতে কখনও জোয়ার কখনও ভাটা থাকে।

বাংলাদেশের রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর ২১ বছর আমরা ভাটায় ছিলাম। আবার যখন বিএনপি ক্ষমতায় ছিল তখনও এক ভয়াল পরিস্থিতিতে ভাটায় ছিলাম। তত্ত্বাবধায়ক সরকাররের সময়ও। আজ আমরা ক্ষমতায় এসে উন্নয়ন করতে পেরেছি। অর্জন করতে পেরেছি, যা দেশে-বিদেশে সমাদৃত হচ্ছে, প্রশংসিত হচ্ছে। এ উন্নয়ন অর্জন মাত্র কয়েক বছরে। এটা একটা বিশ্ব রেকর্ড স্থাপন করেছে।

বাংলাদেশে এ সময়ে এ অর্জন-প্রবৃদ্ধি সব বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য অর্জিত হয়েছে। এটা তো অভূতপূর্ব সাফল্য। সে কারণে এ সংবর্ধনা কৃতজ্ঞ জাতির পক্ষ থেকে। আমরা স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্বদানকারী জাতির জনকের কন্যাকে সংবর্ধনা দিচ্ছি। আর লোক সমাগমের বিষয়টা আপনাদের ক্যামেরাই বলে দেবে।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের এক সময় ভাটা ছিল। এখন বিএনপির। তাদের এ ভাটা জোয়ার হবে কি না জানি না।

আমার মনে হয় আজ যে জোয়ার আওয়ামী লীগের পক্ষে, এ জোয়ারে আগামী নির্বাচনে জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটবে এবং আগামী নির্বাচনে আবারও আওয়ামী লীগ এই জোয়ারে ভাসবে।’

সব দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চাইছে বিএনপি- এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে কাদের বলেন, ‘সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন আমরা চাই না এ কথা কি আমরা বলছি? তবে আমরা কাউকে টেনে আনবো না। সব গণতান্ত্রিক দেশে রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এটা তাদের রাজনৈতিক অধিকার।

এটা করুণা নয়। করুণা বা দয়ায় কেন বিএনপি নির্বাচনে আসবে। এটা তাদের অধিকার।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপির রাজনীতিতে এখন ভাটা চলছে, এ ভাটা কবে যে জোয়ার হবে এটা আল্লাহই জানে।’ নির্বাচনের আগে বিএনপির সঙ্গে কোনও সংলাপ হবে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের বলেন, ‘সংলাপ কেন? কী প্রয়োজনে? নির্বাচন হতে তো কোনও সমস্যা নেই। তারা কি জাতীয়তাবাদী নির্বাচন কমিশন চায়? তাদের প্রতিনিধি তো নির্বাচন কমিশনে আছে।

তারা কি চায় নির্বাচনে জেতারে গ্যারান্টি দিতে হবে? তাহলে তারা নির্বাচনে আসবে? এটা তো কেউ দিতে পারবে না।’ এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল অলম হানিফ, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এ কে এম এনামুল হক শামীম, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।