নাগরিকত্ব বদলে ফেললেন ব্রাজিলের কুতিনহো!

ফুলকি ডেস্ক: বিশ্বকাপে ব্রাজিলের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ কুতিনহো। ব্রাজিলের মধ্যমাঠের কান্ডারি কুতিনহো যে খুব বেশি খারাপ খেলেছে তা নয়। বিশ্বকাপ শেষ। এখন ক্লাব ফুটবলে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ফুটবলাররা। এরই মধ্যে বার্সা মিডফিল্ডার ফিলিপে কুতিনহো বদলে ফেললেন নাগরিকত্ব। নাগরিকত্ব বদলে ফেলেছেন বলে ব্রাজিলিয়ান ভক্তদের হৃদয়ে কাঁপন ধরার মত কিছু ঘটেনি। কুতিনহো আসলে বার্সেলোনার জন্য এটা করেছেন। ব্রাজিলের নাগরিকত্ব তো আছেই সাথে পর্তুগালেরটাও নিয়ে নিলেন বার্সা তারকা।

কুতিনহোর স্ত্রী পর্তুগিজ। সে সুবাদে কুতিনহো পর্তুগালের নাগরিকত্বের আবেদন করেছিলেন। সেটা পেয়েও গেছেন। পর্তুগালের নাগরিকত্ব নেয়ার পেছনের গল্পের মূল চরিত্র বার্সেলোনা। বার্সেলোনার জন্য ব্রাজিল আর পর্তুগালের দ্বৈত নাগরিকত্ব নিয়েছেন কুতিনহো। স্প্যানিশ লিগের নিয়মানুযায়ী ইউরোপের বাইরে থেকে তিনজন খেলোয়াড় খেলতে পারবে মূল দলে। ব্রাজিলের কুতিনহো ১৪২ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে গত মৌসুমে বার্সায় খেলেছিলেন নন-ইউরোপীয়ান খেলোয়াড় হিসেবে। নতুন মৌসুমে আরও ফুটবলার কিনবে বার্সা।

তাতে নন-ইউরোপীয়ান ফুটবলারের সংখ্যা বাড়বে। এ কারণে বার্সাকে সহায়তা করতে কুতিনহো ইউরোপের নাগরিকত্ব নিলেন।২১ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার আর্থারকে এ মৌসুমে দলে ভিড়িয়েছে। ব্রাজিলের এই মিডফিল্ডারের পাশাপাশি বার্সায় নন-ইউরোপীয়ান হিসেবে থাকলো কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার ইয়েরি মিনা। এর আগে উরুগুয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজকে নিয়েও বার্সা ইউরোপীয়ান আর নন-ইউরোপীয়ান ঝামেলায় পড়েছিল। পরে সুয়ারেজ তার ইতালিয়ান স্ত্রীর সুবাদে সে দেশের নাগরিকত্ব নেন।

চেলসির ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার উইলিয়ান নন-ইউরোপিয়ান হিসেবে বার্সায় আসার গুঞ্জন রয়েছে। ৬০ মিলিয়ন পাউন্ডে উইলিয়ানকে ন্যু-ক্যাম্পে আনতে চায় কাতালানরা।