বামদলগুলোর নির্বাচনি জোট আসছে

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বামদলগুলোর একটি নির্বাচনি জোট আসছে। আগামীকাল মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) সকাল ১১ টায় রাজধানীর তোপখানা রোডের সিপিবি অফিসে এক সংবাদ সম্মেলন করে এই জোটের ঘোষণা দেওয়া হবে। দলগুলোর সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

এই জোটের দলগুলো হচ্ছে সিপিবি, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ,  খালেকুজ্জামান)  এবং  বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন, গণসংহতি আন্দোলন ও বাসদ (মার্ক্সবাদী) এই আট দল মিলে নতুন নির্বাচনি জোট গঠন করা হচ্ছে।

দলগুলোর নেতারা বলেন, আজকে (মঙ্গলবার) এক বৈঠকে জোটের নেতারা আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটগতভাবে অংশ নেওয়া বিষয়ে একমত হয়েছেন। তবে জোটের শরিক দল কে কতটি আসনে আগামী নির্বাচনে প্রার্থী দেবে বা কে কোথায় নির্বাচন করবে এসব বিষয় চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আগামীতে আলাপ-আলোচনা করে এসব চূড়ান্ত করা হবে। এছাড়া এই জোট শুধু নির্বাচনি জোট নয়।

দেশের যে কোনও সমস্যায় একসঙ্গে আন্দোলন-সংগ্রামও করবে এই জোট। বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম  বলেন, আগামীকাল সকাল ১১ টায় সিপিবি অফিসে আমাদের নতুন জোটের ঘোষণা করা হবে।
তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির জোটের বাইরে জনগণের তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে আমরা এই জোট গঠন করছি। এ জোটের লক্ষ্য হচ্ছে জনগণের ক্ষমতাকে প্রতিষ্ঠিত করা।

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান  বলেন, এই জোট শুধু নির্বাচনি জোট নয়। এটাকে আন্দোলন ও নির্বাচনি জোট বলা যেতে পারে। কারণ, এই জোটের মূল লক্ষ্য হচ্ছে দেশে ৪৭ বছর ধরে যে নৈরাজ্য বিরাজ করছে তার বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলা। সেই লক্ষ্যে আগামীতে আমরা জোটের পক্ষ থেকে কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

জানা গেছে, এই জোটের মধ্যে সিপিবি, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) এবং বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল। বাকি ৫ টি দলের নিবন্ধন নেই। তাই আগামী নির্বাচনে অনিবন্ধিত দলগুলো স্বতন্ত্র বা অন্যদলের প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।
গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু  বলেন, জোটের যেসব দলের নিবন্ধন নেই তারা আগামী নির্বাচনে স্বতন্ত্র বা অন্য জোটের প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে পারে। তবে এ বিষয়ে এখনও কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আমরা এখন শুধু জোট গঠন করার বিষয়ে একমত হয়েছি।