নায়িকাকে হত্যার হুমকি!

তেলেগু নায়িকা শ্রী রেড্ডি কাস্টিং কাউচ নিয়ে প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করেছিলেন। এই অপরাধের জন্য যাঁদের দিকে তিনি আঙুল তুলেছিলেন, এবার নাকি তাঁরাই নানাভাবে তাঁকে হুমকি দিচ্ছেন। এমনকি হত্যার হুমকিও পেয়েছেন এই নায়িকা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘তামিল অভিনেতা বিশাল রেড্ডি আমাকে হুমকি দিচ্ছেন। কিন্তু আমি ইন্ডাস্ট্রির কালো দিকটা সামনে আনতে চাই।’

জানা গেছে, বিশাল রেড্ডি এখন তামিল ফিল্ম প্রোডিউসার কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট। দক্ষিণের চলচ্চিত্রশিল্পের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের একজন। মাস তিনেক আগে শ্রী রেড্ডি যখন কাস্টিং কাউচ নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলেছিলেন, তখন বিশাল বলেছিলেন, ‘কোনো প্রমাণ ছাড়া শ্রী রেড্ডি কারও নাম প্রকাশ্যে এভাবে বলতে পারেন না। তাঁর কথা শুনে মনে হচ্ছে, যাঁদের ওপর নানা কারণে তিনি খেপে আছেন, তাঁদের নাম বলছেন। কোনো দিন হয়তো আমার নামও বলতে পারেন।’ এবার সেই বিশাল রেড্ডির নামে অভিযোগ করেছেন শ্রী রেড্ডি।

শ্রী রেড্ডির পর নিজেদের ওপর যৌন হেনস্তা নিয়ে মুখ খুলেছেন আরও কয়েকজন তেলেগু অভিনেত্রী। ১০ বছর ধরে তেলেগু ছবিতে কাজ করছেন সন্ধ্যা নাইডু। তিনি বলেন, ‘সকালে শুটিংয়ের সময় আমাকে বলা হয় আম্মা, আর রাতে বলা হয় শুতে।’ তিনি আরও বলেন, ‘একদিন একজন জিজ্ঞাসা করেছিলেন, আপনি ভেতরে কী পরে আছেন?’

আরেকজন অভিনেত্রী সুনীতা রেড্ডি বলেন, ‘সবার সামনে আমাদের জোর করে পোশাক পাল্টাতে বাধ্য করা হয়!’ তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, ‘তারকা নায়িকারা শুটিংয়ে মেকআপ ভ্যান ব্যবহার করেন। কিন্তু আমাদের সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয় না! পোকামাকড়ের মতো ব্যবহার করা হয়। সেখানে গেলে নায়িকারা দুর্ব্যবহার করেন! মুখের ওপর বলে দেন, আমরা যেন ভ্যানের আশপাশে ঘোরাফেরা না করি।’

এসব অভিযোগের পর নড়েচড়ে বসেছেন দক্ষিণের চলচ্চিত্রের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রযোজক, পরিচালক ও নায়ক-নায়িকারা। কারণ, কাস্টিং কাউচের সঙ্গে অনেকেই জড়িত। তাই কার নাম কে প্রকাশ করে দেন, তা নিয়ে শঙ্কিত তাঁরা। ধারণা করা হচ্ছে, এ কারণেই কাস্টিং কাউচ নিয়ে যাঁরা মুখ খুলছেন, তাঁদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।