ধলেশ্বরী নদী পরিদর্শন করলেন নদী রক্ষা কমিশনের ৫ সদস্যের কমিটি

সিংগাইর প্রতিনিধি : সিংগাইরের ধলেশ্বরী নদীর অবৈধ দখল উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন গঠিত ৫ সদস্যের কমিটি। মঙ্গলবার বেলা ১১ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত কমিটির সদস্য মোঃ আলা উদ্দিন নেতৃত্বাধীন দলটি ধলেশ্বরী নদীর ফোর্ডনগর থেকে ভাষা শহীদ রফিক সেতু পর্যন্ত অবৈধ দখলের চিত্র সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, এলাকাবাসির আবেদন ও দৈনিক ফুলকিসহ একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে গত ২৬ জুন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন চেয়ারম্যান ড.মুজিবুর রহমান হাওলাদার দখলস্থলে এসে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ওই দিন জেলা নদী রক্ষা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক , পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ঢাকা নর্দান পাওয়ার জেনারেশন কোম্পনীর অবৈধ দখল উচ্ছেদের জন্য নির্দেশ দেন। সেই সাথে উচ্ছেদ কার্যত্রুম তদারকি ও সহায়তার জন্য ৫ সদস্যের কমিটি গঠন করেন।

ওই কমিটির সদস্যরা সরেজমিনে ধলেশ্বরী নদী পরিদর্শন করেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট শহীদুল ইসলাম, সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ যুবায়ের, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ হামিদুর রহমান, ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন প্রমুখ।

এদিকে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, দখলদাররা প্রভাব খাটিয়ে নদী কমিশনের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ধলেশ্বরী নদীর দখলকৃত ১১.৩০ একর জমিতে মাটি ভরাটের পর স্থাপনা নির্মাণের কাজ পুরোদমে চালিয়ে যাচ্ছে।

এসময় তারা অভিযোগ করে বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পরিদর্শন, মামলা, আইনগত ব্যবস্থা নেয়া এসব লোক দেখানো মাত্র। অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদে কোন কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।’

এ ব্যাপারে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন গঠিত কমিটির প্রধান ও কমিশনের সার্বক্ষনিক সদস্য মোঃ আলা উদ্দিন বলেন, ‘আমাদের পরিদর্শন ও কাগজ পত্র পর্যালোচনা করে দেখা গেছে নর্দান পাওয়ার জেনারেশন কোম্পনীর দখল করা পুরো জমি ধলেশ্বরী নদীর। উচ্ছেদের জন্য জেলা প্রশাসক সহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে ।’