এমপিও নীতিমালা জারির আগেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাছাইয়ে কমিটি

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারের আইন, নীতিমালা কিংবা বিধিমালা জারির পরেও তা বাস্তবায়নের জন্য দীর্ঘ সময় নষ্ট হয়। অনেক সময় সংশ্লিষ্ট আইন, নীতি বা বিধি কার্যকর করা সম্ভব হয় না আমলাতন্ত্রিক জটিলতার কারণে। কিন্তু এবার ঘটেছে উল্টো। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (কারিগরি ও মাদ্রাসা) এমপিওভুক্তির জন্য প্রস্তুত করা নতুন খসড়া নীতিমালার চূড়ান্ত অনুমোদন হয়নি রবিবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যা পর্যন্ত। কিন্তু নীতিমালা না হলেও খসড়া ওই নীতিমালা অনুযায়ী, প্রতিষ্ঠান বাছাই কমিটি গঠন করেছে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। তবে নীতিমালা জারির আগে প্রজ্ঞাপন জারির বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও উন্নয়ন) এ কে এম জাকির হোসেন ভুঞা।

তিনি বলেন, ‘অর্থমন্ত্রণালয় নীতিমালাটি অনুমোদন দিয়েছে। মাদ্রাসা ও কারিগরির ক্ষেত্রে কিছু প্রার্থক্য আছে। সেগুলো ঠিক করে আগামী সপ্তাহে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।’

মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও (মান্থলি মেমেন্ট অর্ডার) দিতে ‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’-এর খসড়া চূড়ান্ত করেছে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ। মন্ত্রণালয় খসড়া চূড়ান্ত করে অর্থমন্ত্রণালয়ে পাঠালে মন্ত্রণালয় বেশ কিছু পর্যবেক্ষণসহ অনুমোদন দেয়। ওই পর্যবেক্ষণ সমন্বয় করে চূড়ান্ত খসড়া জারির জন্য প্রক্রিয়া চলছে। এ অবস্থার মধ্যে গত ১২ জুলাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে একটি বাছাই কমিটি গঠন করে।

কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ্ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয় ‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’এর ১৬ (ক) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, এমপিওভুক্তির লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠান বাছাইয়ের জন্য ১০ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হলো।’

প্রজ্ঞাপনে কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও উন্নয়ন) এবং সদস্য সচিব করা হয়েছে যুগ্মসচিবকে (প্রশাসন-২)।

নীতিমালা জারি হওয়ার আগেই নীতিমালা অনুযায়ী প্রজ্ঞাপন হওয়ার বিষয়ে যুগ্মসচিব (প্রশাসন-২)  এস এম মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। যারা করেছে তাদের কাছে জিজ্ঞাসা করেন।’  বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে গত ১২ জুন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে ‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’নীতিমালা জারি করা হয়। আর কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ- কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে একটি খসড়া নীতিমালা চূড়ান্ত করে। আগামী সপ্তাহে এই নীতিমালা জারি করা হবে বলে জানান কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও উন্নয়ন) এ কে এম জাকির হোসেন ভুঞা।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি স্কুল ও কলেজ শিক্ষক নিয়োগে জারি করা নতুন এমপিও নীতিমালায় বয়স ৩৫ বছর করা হলেও কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষকদের খসড়া নীতিমালায় বয়সের বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয়নি। এছাড়া শিক্ষকদের সুবিধা দিতে বদলির ব্যবস্থাও আরোপ করা হয়নি, যা আরোপ করা হয়েছে স্কুল ও কলেজের শিক্ষকদের ক্ষেত্রে।