রাজশাহীকে দেশের অন্যতম শিক্ষা নগরী হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় লিটনের

মেয়র নির্বাচিত হলে রাজশাহীকে দেশের অন্যতম শিক্ষা নগরী হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন খায়রুজ্জামান লিটন। শিক্ষানগরী হিসেবে খ্যাত রাজশাহী নগরীতে শিক্ষা নিয়ে ব্যাপক কাজ করতে চান খায়রুজ্জামান লিটন।

রাজশাহী নগরীর শিক্ষা নিয়ে তার পরিকল্পনাগুলোর মধ্যে রয়েছে পূর্ণাঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, আয়ুর্বেদিক মহাবিদ্যালয় স্থাপন, রাজশাহী মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্রুত বাস্তবায়ন, রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড সার্ভে ইনস্টিটিউটকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তর, মান সম্পন্ন নতুন একাধিক বালক ও বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজে স্থাপন করা, পূর্ণাঙ্গ সঙ্গীত, ইউনানী চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় স্থাপন, পুরো নগরীর নাগরিক কেন্দ্রগুলোকে ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের আওতায় আনা, রাজশাহী মহানগরীতে আগত শিক্ষার্থীদের আবাসিক ও নিরাপত্তা সমস্যা সমাধানে সিটি কর্পোরেশন এর পক্ষ থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।

রাজশাহী হোমিওপ্যাথিক কলেজ ও হাসপাতাল এর উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ করা, রাজশাহী নগরীতে অবস্থিত সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার পরিবেশ ও মান উন্নয়ন করে শিশু শিক্ষা ও ভর্তি সমস্যার সমাধান করা, রাজশাহীতে অনগ্রসর বস্তিবাসী ও বিদেশে চাকুরী পেতে আগ্রহীদের জন্য জনশক্তি রপ্তানীমুখী বিশেষ কারিগরি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করা, বেসরকারি পর্যায়ে ইংরেজী, আরবি, স্প্যানিশ, চায়নিজ সহ বিশ্বের প্রধান প্রধান ভাষা শিক্ষার ব্যবস্থা করা।

মেয়র নির্বাচিত হলে একলাখ বেকারের কর্মসংস্থান ও মাদকমুক্ত রাজশাহী গড়ে তুলবেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

এছাড়াও তিনি রাজশাহীকে শিক্ষা নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে খেলার মাঠ তৈরী, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, আলেম ও সাংবাদিকদের জন্যও আলাদা আবাসিক এলাকা গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।