আশুলিয়ায় ক্লিনিকে সিজারিয়ান অপারেশনে প্রসূতির মৃত্যু

আশুলিয়া ব্যুরো : আশুলিয়ায় হ্যাপী জেনারেল হাসপাতাল নামে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে শান্তি রানী চাকমা (৩০) এক প্রসূতি সন্তান ভূমিষ্ঠ করাতে গেলে তাকে সিজারিয়ান অপারেশন করেন ক্লিনিকের চিকিৎসক।

এতে প্রসূতি শান্তি রানীর ব্যাপক রক্তক্ষরণ হয়। একপর্যায়ে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপতালে প্রেরণ করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। তবে নবজাতক জীবিত রয়েছেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে আশুলিয়ার গাজীরচট ইউনিক বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন হ্যাপী জেনারেল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শান্তিরানী চাকমা খাগড়াছড়ি জেলার দিঘীনালা থানাধীন ক্রীপাপুর এলাকার জয় চাকমার স্ত্রী। স্বামীর সাথে সে আশুলিয়ার বুড়িবাজার এলাকার জাকিরের বাড়িতে ভাড়া থেকে একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করতো।

এ বিষয়ে স্বামী জয় চাকমা বলেন, ঘটনার রাতে শান্তি রানীর প্রসব বেদনা শুরু হলে তাকে দালালের মাধ্যমে হ্যাপী জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক হ্যাপী’র তত্ত্বাবধানে ছিলেন।

সেখানে শান্তি কে সিজারিয়ান অপারেশন করতে হবে বলে জানান। একপর্যায়ে রাত ২টায় তার অপারেশন করলে একটি মেয়ে সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়।

এরপর শান্তি অজ্ঞান হয়ে থাকে চেতনা ফিরে না আসায় এবং রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় চিকিৎসকের পরামর্শে হাসপাতালের ব্যবস্থাপনায় তাদের এ্যাম্বুলেন্সে প্রসূতিকে সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

সেখানে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। তবে নবজাতক সুস্থ্য রয়েছেন বলেও তিনি জানান। এ ঘটনায় পরিবারটির মাঝে চাপা ক্ষোভ আর শোকে মূহ্যমান।