বেরোবিতে বানান ভুল : ২ জনকে শোকজ

রংপুর সংবাদদাতা : রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) প্রকৌশল দপ্তর থেকে ইস্যু করা এক অফিস আদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল এবং শহীদ মুখতার ইলাহী হলের নাম লিখতে গিয়ে বানান ভুল করায় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা নির্বাহী প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী ও প্রকৌশল দপ্তরের কম্পিউটার অপারেটর মো. রাকিবুল ইসলাম শ্যামলকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

একইসঙ্গে সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে নোটিশের জবাব দেওয়ার সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছিল।

এ সময়ের মধ্যে দায় স্বীকার করে নিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। তবে কম্পিউটার অপারেটর মো. রাকিবুল ইসলাম শ্যামল এখনো নোটিশের জবাব দেননি। রোববার সকালে বানান ভুলের বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এই কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। বেঁধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে যথাযথ জবাব দিতে ব্যর্থ হলে দায়ী কর্মকর্তা/কর্মচারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। বেরোবির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়েল জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা বিভাগের সেকশন অফিসার মো. আরিফুল ইসলাম জানান, কারণ দর্শানোর নোটিশ পাওয়ার মাত্র তিন ঘণ্টার মধ্যে নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফ হোসাইন পাটোয়ারী নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে কম্পিউটার টাইপের সময় ‘অনিচ্ছাকৃত ভুল’ হয়েছে উল্লেখ করে প্রশাসনকে জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি স্পর্শকাতর এই নামগুলোর বানান ভুলের কারণে অনুতপ্ত বলে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুলাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, শহীদ মুখতার ইলাহী হল এবং কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সব ধরনের বৈদ্যুতিক মেইনটেনেন্স সম্পর্কিত কাজের জন্য প্রকৌশল দপ্তর থেকে দুইজন ইলেকট্রিশিয়ানকে দায়িত্ব প্রদানের জন্য একটি চিঠি ইস্যু করা হয়। সেই চিঠিতে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের নামের বানান এবং শহীদ মুখতার ইলাহীর জায়গায় ‘মোখতার’ ইলাহী লেখা হয়। সেই চিঠিতে স্বাক্ষর ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপপ্রকৌশলী মো. শরীফ হোসাইন পাটোয়ারীর। এ ঘটনার প্রতিবাদে রোববার বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা প্রকৌশল দপ্তরে গিয়ে উপসহকারী প্রকৌশলীর অফিস কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়।