‘অপুর কোনও জুটি লাগে না, তিনি একাই একশ’

ফুলকি ডেস্ক: চলছে নায়ক ফেরদৌস ও নায়িকা পূর্ণিমার হালকা মেজাজের খুনসুটি, দর্শকও সেখানে মশগুল হয়ে আছেন। এই দুই তারকা নিজেদের কথোপকথনের মাঝেই নাটকীয়ভাবে শিল্পীদের নাম ঘোষণা করছেন।

আর সে অনুযায়ীই একে একে মঞ্চ মাতিয়ে গেছেন শিমলা-সাইমন ও ইমন-তমা মির্জা জুটি। দর্শকের অপেক্ষা পরের জুটির জন্য!

পূর্ণিমা ঘোষণা করলেন নাম, ‘এবার আসছেন এ সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস।’
এরপর খানিক নীরবতা। কারণ, জুটির অপরজনের নাম জানাচ্ছেন না পূর্ণিমা!

‘তবে কি অপু একাই নাচবেন’—দর্শকের মনের কথাটাই যেন পূর্ণিমার কাছে জানতে চাইলেন ফেরদৌস। চটজলদি জবাব পূর্ণিমার, ‘অবশ্যই এবার অপু একাই আসছেন। কারণ, তার কোনও জুটি লাগে না। তিনি একাই একশ’!’ মুহূর্তেই তুমুল করতালি।

ঘটনাটা গতকাল ৮ জুলাই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার আসরের সংস্কৃতিক পর্বের। এতে আজীবন সম্মাননা পাওয়া ফারুক ও ববিতার একসময়ের জনপ্রিয় গানে নাচেন অপু বিশ্বাস ও চলচ্চিত্রের চারটি জুটি। অন্যরা হলেন জায়েদ খান-সাহারা, আমিন খান-পপি, ইমন-তমা মির্জা ও সাইমন সাদিক-সিমলা। নাচের গানগুলোর মধ্যে ছিল সারেং বৌ ছবির ‘ওরে নীল দরিয়া’, নয়নমণির ‘চুল ধইরো না খোঁপা খুলে যাবে যে নাগর, সুজন-সখীর ‘সব সখীরে পার করিতে নেবো আনা আনা’, ঝিনুকমালার ‘তুমি ডুব দিও না জলে কন্যা’ ও নিশানের ‘চুপি চুপি বলো কেউ জেনে যাবে’।

এছাড়াও আরও কয়েকটি গানের কোলাজে নাচেন শিল্পীরা। অপু ‘মেয়েটি এমন’ ও ‘ধুম তা না’ গানে নেচেছেন।
ববিতা ও ফারুককে উৎসর্গ করা পুরো নৃত্য পর্বটি পরিচালনা করেছেন মাসুম বাবুল ও ইভান শাহরিয়ার সোহাগ।
এর আগে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত জাতীয় চলচ্চিত্র পুস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে তিনি ২০১৬ সালের চলচ্চিত্রের জন্য বিজয়ীদের পুরস্কৃত করেন।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে জমে ওঠে শিল্পীদের পরিবেশনা। সাংস্কৃতিক পর্বের গানে অংশ নেন খুরশীদ আলম, এসডি রুবেল, প্রিয়াঙ্কা গোপ, প্রতীক হাসান, বেলাল খান, কোনাল। ছিল মৌর নৃত্য পরিবেশনাও। আর শেষ অংশে ছিলেন অপু ও চার চলচ্চিত্র জুটি।