দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে শিক্ষাই মূল হাতিয়ার: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : ‘দারিদ্র্যমুক্ত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষাই মূল হাতিয়ার। তাই বর্তমান সরকার শিক্ষা খাতের উন্নয়নে সব রকম পদক্ষেপ নিয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ ২০১৮-এর সেরা মেধাবীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়ে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা। দেশের শিক্ষার্থীরা যাতে আগামী বিশ্বের সঙ্গে তাল মেলাতে পারে, সরকার সে লক্ষ্যে কাজ করছে বলেও জানান তিনি। এ সময় আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন, বিজ্ঞানভিত্তিক বাংলাদেশ গড়ার নিজের স্বপ্নের কথাও জানান প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে রাখা বক্তব্যে সরকার প্রধান বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে চাই। আর বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করার জন্য শিক্ষাই মূল হাতিয়ার বলে আমি বিশ্বাস করি। যেটা জাতির পিতা সব সময় বলতেন যে শিক্ষিত করে ছেড়ে দাও, নিজের পায়ে দাঁড়াবে এবং দেশকেও এগিয়ে নিয়ে যাবে। সে কারণে আমরা সারা বাংলাদেশে, এখন যেমন প্রতিটা জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছি সরকারিভাবে, সরকারের উদ্যোগে, বহুমুখী বিশ্ববিদ্যালয় আমরা করে দিচ্ছি।’

আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মেলাতেই সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি সরকার বিজ্ঞান ও কারিগরি শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে বলেও জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমাদের ছেলেমেয়েদের আমরা সেভাবেই গড়ে তুলতে চাই যেন আগামী দিনের বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতিযোগিতায় যেন আমাদের ছেলেমেয়েরা এগিয়ে থাকে। সেদিকে লক্ষ রেখেই আমরা আমাদের সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের আড়ালে থাকা মেধাবীদের খুঁজে বের করতে ও উৎসাহ দিতে ২০১৩ সাল থেকে আয়োজন করা হচ্ছে সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের তিনটি বিভাগে চারটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। উপজেলা ও জেলা পর্যায় পেরিয়ে এ বছর জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেওয়া ১০৮ জন মেধাবী শিক্ষার্থীর হাতে সকালে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের মধ্যে ১২ জন সেরা মেধাবী তুরস্কে শিক্ষা সফরের সুযোগ পাচ্ছে।