বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয় দাতাদের সঙ্গে সংলাপ নয় : সেতুমন্ত্রী

যারা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়েছে, যারা স্বাধীনতাবিরোধীদের ক্ষমতায় বসিয়েছে তাদের সঙ্গে সংলাপের বসার কোনো ইচ্ছা আওয়ামী লীগের নেই বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের বিশেষ বর্ধিত সভার তৃতীয় পর্বে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। এমসময়  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

দশম সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপিকে সংলাপের আমন্ত্রণ জানানো হলেও এবার আর এমনটি হচ্ছে না জানিয়ে তিনি বলেন, ২০১৩ সালে সংলাপের জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন করেছিলেন এবং বিএনপি নেত্রীর দুর্ব্যবহারের কথা মনে আছে। টেলিফোনের সেই সংলাপ কী নির্মমভাবে, নির্দয়ভাবে অপমান করে শেখ হাসিনাকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন তিনি।

২০১৫ সালে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর পর গুলশানে বিএনপি নেত্রীকে প্রধানমন্ত্রীর দেখতে যাওয়ার পর গুলশান কার্যালয়ে তাকে ঢুকতে না দেয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, এই নিষ্ঠুরতা যারা করে তাদের সঙ্গে কি সংলাপ হয়? সেদিন দরজা বন্ধ করে বাংলাদেশে সংলাপের দরজাই তারা বন্ধ করে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার কারাগারে যাওয়ায় পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয়েছে। বিএনপি এমনও বলছে, তাদের নেত্রীকে ছাড়া ভোটে যাবে না তারা।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ জুন জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং জনপ্রতিনিধিরা যোগ দেন প্রথম পর্বের বর্ধিত সভায়। দ্বিতীয় পর্বে ৩০ জুন যোগ দেন চারটি বিভাগের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং জনপ্রতিনিধিরা। আজ ছিলো শেষ পর্ব।