রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ৮ দলের অজানা কিছু তথ্য

ফুলকি ডেস্ক: বিশ্বকাপের প্রি-কোয়ার্টারের লড়াই শেষ। গ্রুপ লিগের বাধা টপকে যে দলগুলি শেষ ষোল’য় জায়গা করে নিয়েছিল, তাদের মধ্যে আটটি দল যোগ্যতা অর্জন করেছে কোয়ার্টার ফাইনালের৷ জার্মানি, পোল্যান্ডের মতো শক্তিশালী দেশগুলি গ্রুপ পর্যায় থেকেই বিদায় নিয়েছে। প্রি-কোয়ার্টারে ছিটকে গিয়েছে আর্জেন্টিনা, স্পেন, পর্তুগাল, কলম্বিয়ার মতো তারকাখচিত দেলগুলি।

ফেভারিট ব্রাজিলের সঙ্গে শেষ আটে টিকে রয়েছে ফ্রান্স, উরুগুয়ে, ইংল্যান্ডের মতো অতীত বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। তাদের সঙ্গে প্রথমবার খেতাব জয়ের লক্ষ্যে লড়াই চালাচ্ছে বেলজিয়াম, সুইডেন, ক্রোয়েশিয়া ও আয়োজক রাশিয়া৷ নিজনি নভগোরডে ফ্রান্স বনাম উরুগুয়ের লড়াই দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল শুরুর আগে কয়েকটি অজানা তথ্য জেনে নেওয়া যাক শেষ আটের দলগুলিকে নিয়ে৷

১। ফ্রান্স-

গত চার দশকে বিশ্বকাপে দক্ষিণ আমেরিকান কোনও দলের কাছে হারেনি ফ্রান্স৷ শেষবার ১৯৭৮ বিশ্বকাপে আয়োজক আর্জেন্টিনার কাছে পরাস্ত হয়েছিল ফরাসি দল৷ তারপর থেকে দক্ষিণ আমেরিকান দেশগুলির বিরুদ্ধে ৫টি ম্যাচে জিতেছে এবং ৪টি ম্যাচ ড্র করেছে ফ্রান্স৷

২। উরুগুয়ে-

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটি উরুগুয়ে কোচ হিসাবে অস্কার তাবারেজের ২০ তম বিশ্বকাপ ম্যাচ হতে চলেছে৷ এই নিরিখে তিনি ছুঁয়ে ফেলতে চলেছেন বোরা মিলুশিনোভিচ ও মারিও জাগালোকে৷ বিশ্বকাপে সর্বাধিক ম্যাচে কোচিং করানোর তালিকায় তিনি যুগ্মভাবে চতুর্থ স্থানে উঠে আসতে চলেছেন৷

৩। বেলজিয়াম-

এই নিয়ে পঞ্চমবার ব্রাজিলের মুখোমুখি হতে চলেছে বেলজিয়াম৷ এর আগে বিশ্বকাপে একবারই মুখোমুখি হয়েছিল দু’দেশ৷ ২০০২ সালে জাপান-কোরিয়া বিশ্বকাপে রিভালদো ও রোনাদোর গোলে ২-০ ব্যবধানে জয় তুলে নিয়েছিল ব্রাজিল৷ সেদিক থেকে বিশ্বকাপে এটা বদলার ম্যাচ বেলজিয়ামের৷

৪। ব্রাজিল-

রাশিয়া বিশ্বকাপে শেষ তিনটি ম্যাচে ২-০ গোলের ব্যবধানে জয় তুলে নিয়েছে ব্রাজিল৷ তারা শেষ ৩১০ মিনিটে কোনও গোল হজম করেনি৷

৫। রাশিয়া-

চলতি বিশ্বকাপের আয়োজক রাশিয়া শেষবার বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল সোভিয়েত ইউনিয়ন হিসাবে৷ ১৯৭০ বিশ্বকাপের কোয়ার্টারে তারা উরুগুয়ের কাছে পরাজিত হয়েছিল৷

৬। ক্রোয়েশিয়া-

পাঁচটি বিশ্বকাপের মধ্যে এই নিয়ে তিনবার আয়োজক দেশের মুখোমুখি হতে চলেছে ক্রোয়েশিয়া৷ গত দু’বার তারা আয়োজকদের বিরুদ্ধে হার স্বীকার করেছে৷ ১৯৯৮ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে আয়োজক ফ্রান্সের কাছে পরাস্ত হয়েছিল ক্রোয়েশিয়া৷ ২০১৪ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ব্রাজিলের কাছে হারতে হয়েছিল তাদের৷

৭। সুইডেন-

এর আগে বিশ্বকাপে দু’বার ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল সুইডেন৷ দু’বারই ম্যাচ ড্র’য়ে নিস্পত্তি হয়৷ ২০০২ বিশ্বকাপে দু’দেশের ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হয়৷ ২০০৬ সালে ২-২ গোলের সমতায় শেষ হয় দু’দলের মুখোমুখি লড়াই৷ উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, দু’বারই ইংল্যান্ডের কোচ ছিলেন সুইডেনের এরিকসন৷

৮। ইংল্যান্ড-

কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে পেনাল্টি শুট-আউটে জয়ী হয় ইংল্যান্ড৷ বিশ্বকাপে এই প্রথমবার শুট-আউটে জয়ী হয় তারা৷ এর আগে ১৯৯০ বিশ্বকাপে পশ্চিম জার্মানি, ১৯৯৮ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা ও ২০০৬ বিশ্বকাপে পর্তুগালের কাছে পেনাল্টি শুট-আউটে হেরেছিল ইংল্যান্ড৷